ভারতের বিরুদ্ধে জয়ের উচ্ছ্বাসে শূন্যে গুলি, করাচিতে আহত ৭

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। জয় এসেছে চির-প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে হারিয়ে। জয়ের মার্জিনও কম নয়, ১৮০ রান। স্বভাবতই রবিবার রাত থেকে উচ্ছ্বাসে ভেসে গিয়েছে গোটা দেশ। কিন্তু এই আনন্দের মধ্যেই ঘটেছে দুর্ঘটনা। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আনন্দে অনেকেই শূন্যে গুলি চালিয়ে নিজেদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। করাচিতে সেরকমই কয়েকটি ঘটনায় গুলি লেগে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। এখনও অবধি জানা গিয়েছে, মোট সাতজন গুলিতে আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে শিশু ও মহিলাও রয়েছেন। তাঁদের প্রত্যেককেই করাচির বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

[হারের জের: অশ্বিনদের পোস্টারে আগুন, নেটদুনিয়ায় বিরাটের হাতে কমোড]

এদিন ফাইনালের পরেই গোটা পাকিস্তান বিজয়োল্লাসে মেতে ওঠে। তখনই এই ঘটনাগুলি ঘটে। এই প্রসঙ্গে করাচি পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ‘গুলি লেগে মোট সাতজন আহত হয়েছেন। তাঁদের করাচির বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে এক শিশু ও এক মহিলাও রয়েছেন।’ পাশাপাশি তিনি এটাও জানান, আহতরা প্রত্যেকেই এখন সুস্থ রয়েছেন। জানা গিয়েছে, আহতদের মধ্যে আছেন সারিক ইশতিয়াক নামে এক ইঞ্জিনিয়ার। এদিন ম্যাচের পর পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের বাড়ির সামনে কয়েকজন অজ্ঞাতপরিচয় যুবক শূন্যে গুলি ছুড়তে থাকে। তখনই মাথায় গুলি লাগে ইশতিয়াকের। এছাড়া অন্য একটি ঘটনায় আহত হয়েছেন হুসেইন রাজা নামে পাঁচ বছরের এক বালক। মডেল কলোনির বাসিন্দা ওই বালকটির তলপেটে গুলি লেগেছিল। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

[বিজেপির রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর নাম শুনেই অগ্নিশর্মা মমতা]

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। গোটা ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। যদিও শুধু করাচি নয়, রবিবার রাতে পাকিস্তানের অন্যান্য শহরেও এরকম গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে। যেমন- খাইবার পাখতুনখোয়া এলাকার মারদান জেলায় আহত হয়েছেন ছ’জন।

[‘আঁজলা জলে ডুবে মরুন’, মোদিকে চূড়ান্ত অপমান পাক সঞ্চালকের]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *