মহিলা যাত্রীকে যৌন হেনস্তার পর গাড়ি লক করে দিল ক্যাব চালক

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের মহিলাযাত্রীকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ উঠল উবের চালকের বিরুদ্ধে। মদ্যপ চালকের হাত থেকে রেহাই পেতে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন ওই যাত্রী। অভিযোগ, সেই সময় চালকের আসন থেকে গাড়ি সেন্ট্রাল লক করে দেয় অভিযুক্ত চালক। ইতিমধ্যেই চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সঞ্জীব ওরফে সঞ্জু( ২২)। বাড়ি হরিয়ানার গান্নুরে। গত ন’তারিখে ঘটনাটি ঘটেছে হরিয়ানায়। সোমবার অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, হরিয়ানার কুন্ডলি এলাকা থেকে উবের বুক করেন ওই মহিলা। পেশায় মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির উপদেষ্টা মহিলা যাত্রীর গন্তব্য ছিল হরিয়ানার সেক্টর-থ্রির রোহিনী আবাসন। তবে ক্যাব যখন তাঁর সামনে এল, তখনই সন্দেহ হয়েছিল নম্বর প্লেট দেখে। ক্যাবের নম্বর প্লেটে সাদা রং করা ছিল। এমনকী, মোবাইলে আসা ক্যাব চালকের ছবির সঙ্গে উপস্থিত চালকের কোনও মিল ছিল না। সন্দেহ হলেও তাড়ায় ছিলেন তিনি। তাই সময় নষ্ট না করে গাড়িতে চড়ে বসেন। তবে গাড়িতে উঠেই বুঝতে পারেন, চালক মদ্যপ অবস্থায় রয়েছে। অভিযোগ, গন্তব্যের সোজা রাস্তা ছেড়ে ক্যাব চালক ততক্ষণে অন্যরাস্তায় ঢুকে পড়েছে। পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে দেখে, চালককে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন ওই মহিলা। এই প্রশ্নবাণে মারাত্মক রেগে যায় ক্যাব চালক। অভিযোগ, মহিলাকে শারীরিকভাবে হেনস্তা শুরু করে। অজানা আতঙ্কে তখনকার মতো চুপ করে যান তিনি। সামনেই ট্রাফিক সিগন্যালে ক্যাব থেমে গেলে দরজা খুলে নেমে পড়ারও চেষ্টা করেন। বুঝতে পেরে গাড়ির সেন্ট্রাল লক লাগিয়ে দেয় চালক। এরপর জ্যামে গাড়ির গতি শ্লথ হতেই সুযোগ কাজে লাগান মহিলা। লক খুলে চটজলদি গাড়ি থেকে নেমে পড়েন। মহিলা যাত্রী হাতের বাইর বেরিয়ে যেতেই এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয় ক্যাব চালক।

[যান্ত্রিক ত্রুটিতে ৮ বিমান নিষিদ্ধ, ৪৭টি উড়ান বাতিল ইন্ডিগোর]

এরপরেই নিকটবর্তী থনায় যৌন হেনস্তার অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা যাত্রী। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত চালকের খোঁজে তদন্তে নামে পুলিশের একটি দল। হরিয়ানার সোনপত এলাকার জানতিকালান গ্রামে ক্যাবটিকে খুঁজে পাওয়া যায়। গাড়ির মধ্যেই ছিল মদ্যপ চালক। উবের সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, উবেরের নিজস্ব চালক নয় সঞ্জীব। উবেরের এক ক্যাবচালকের সঙ্গে তার সম্পর্ক রয়েছে। সেই চালকই নিজের গাড়ি সঞ্জীবকে চালাতে দেন। সঞ্জীবের কাছে কোনও ড্রাইভিং লাইসেন্সও ছিল না। যে ক্যাবটি সে চালাচ্ছিল, তার কোনও বাণিজ্যিক নম্বরও ছিল না। সঞ্জীবকে জেরা করার পর ওই ক্যাব চালককে খুঁজে বের করেছে পুলিশ। তারপরেই ক্যাব কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

উবেরের মুখপাত্র জানিয়েছেন, নিজেদের সংস্থায় কোনও চালক নিতে গেলে প্রথম চালকের হাল-হকিকতের খবর নেওয়া হয়। তারপর চালককে ক্যাব পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত করা হয়। সংস্থার অ্যাপে আরও একটি সুযোগ রয়েছে। চাইলে চালক সহকারীও নিতে পারেন। অনেকেই এই সুযোগ নেয়। ওই চালকও সহকারী হিসেবে সঞ্জীবকে নিয়েছিলেন। তবে সঞ্জীবের ডিটেলস অফিসে জমা দেননি। তাঁর গাড়িতে যে বাণিজ্যিক নম্বর প্লেটটি নেই তাও জানাননি। এরপরেই সংস্থা থেকে ওই চালকের নাম বাতিল করে দেওয়া হয়। এই ঘটনার পর থেকে ক্যাব ও সহকারী চালকের সুযোগ বাদ দেওয়া হবে। চাইলেও ক্যাব চালক সহকারী নিতে পারবেন না।

[রেস্তরাঁয় খাবারের মান নিয়ে অভিযোগ, যুবককে পিটিয়ে খুন]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *