পাকিস্তানের কাছে ভারতের হারে আত্মহত্যা বাংলাদেশি ক্রিকেটপ্রেমীর

সুকুমার সরকার, ঢাকা: চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল শেষ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। আর বিরাটদের এই হারে শোকে মূহ্যমান গোটা ভারত। কিন্তু ভারতের হারের রেশ সীমান্ত পেরিয়ে পৌঁছে গিয়েছে আরেক প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশেও। যেহেতু সেমিফাইনালে বিরাটদের কাছেই পরাস্ত হয়েছিল বাংলাদেশ, তাই টিম ইন্ডিয়ার হারে ঢাকাতেও দেখা গিয়েছে উৎসবের আমেজ। কিন্তু এর মধ্যেই এসেছে দুঃসংবাদ। ফাইনালে বিরাটরা ১৮০ রানে চূর্ণ হতেই আত্মহত্যা করলেন মহম্মদ বিদ্যুৎ হোসেন নামে এক বাংলাদেশি যুবক।  রাজধানী ঢাকা থেকে ১৮০ কিলোমিটার দূরে জামালপুরের বাসিন্দা তিনি।

[কোহলিদের হারে উল্লাস কাশ্মীরে, ভারতকে খোঁচা পাক সেনার]

জানা গিয়েছে, রবিবার ফাইনালের আগে পেশায় খাবার বিক্রেতা বিদ্যুৎ বন্ধুদের সঙ্গে বাজি ধরেছিলেন। দাবি করেছিলেন, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির কাপটি উঠবে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির হাতে। কিন্তু খেলা যত গড়াতে থাকে ভুল প্রমাণ হতে থাকে বিদ্যুতের ভবিষ্যদ্বাণী। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান তোলে ৩৩৮ রান। জবাবে মাত্র ১৫৮ রানেই থেমে যায় ধোনি-কোহলি-রোহিত-যুবরাজদের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপ। এরপরেই যাঁদের সঙ্গে বাজি ধরেছিলেন বিদ্যুৎ, তাঁরা টাকা চায়। কিন্তু বাজির টাকা দিতে পারবেন না জেনেই আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় ওই যুবক। এরপরেই রাত ১২টা নাগাদ জামালপুরের গেটপাড় এলাকায় ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন তিনি। ঢাকা থেকে দেওয়ানগঞ্জগামী ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস ট্রেনটি তাঁর শরীরের উপর দিয়ে চলে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই যুবকের। খবর পেয়ে আসে পুলিশ। তাঁরাই মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।

[হারের জের: অশ্বিনদের পোস্টারে আগুন, নেটদুনিয়ায় বিরাটের হাতে কমোড]

গোটা ঘটনায় এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া। বাজির টাকা দিতে না পারায় আত্মহত্যা করেছেন ওই যুবক। প্রাথমিক তদন্তে এই তথ্য উঠে এলেও এর পিছনে অন্য কোনও কারণ আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

[OMG! ঐশ্বর্যকে ধূর্ত শেয়াল বললেন ক্যাটরিনা!]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *