মাঝ আকাশে বিমানে বাতকম্ম, জরুরি অবতরণ করতে বাধ্য হলেন চালক

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাঝ আকাশে জোর বিপত্তি। প্রায় সঙ্গে সঙ্গে বিমানচালককে খবর দেওয়া হল। সাতপাঁচ না ভেবেই জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নিলেন অভিজ্ঞ পাইলট। সবার আগে যাত্রীদের নিরাপত্তা। তারপর বাকি সবকিছু। এই ভেবেই কাছাকাছি ভিয়েনা বিমানবন্দরে অবতরণের অনুমতি চাইলেন চালক। অনুমতি মিলতেই মাটি ছুঁল যাত্রীবাহী বিমানটি। ককপিট থেকে বেরিয়ে পাইলট জানতে চাইলেন এমার্জেন্সির কারণ। উত্তর শুনে প্রায় বাকরুদ্ধ হওয়ার মতো পরিস্থিতি তাঁর। হাসবেন না রাগবেন, বুঝেই উঠতে পারছিলেন না তিনি।

[জনপ্রিয় এই স্মার্টফোনগুলি ব্যবহার করেন? বিপদ ডেকে আনছেন না তো?]

কী এমন ঘটেছিল? দুবাই থেকে আমস্টারডামের দিকে রওনা দিয়েছিল ডাচ সংস্থার বিমানটি। ইকোনমি ক্লাসে হঠাৎ তিন যাত্রীর মধ্যে বচসা বেধে যায়। কী ব্যাপার? খোঁজ নিতে গিয়ে জানা যায়, বিমানে ওঠার পর থেকেই এক যাত্রী পায়ুদ্বার দিয়ে বায়ু নির্গত করে চলেছেন। বারবার তাঁকে সংযত হতে বলা হলেও শুনছেন না। দুর্গন্ধের চোটে তাঁর পাশে বসা যাচ্ছে না বলে অভিযোগ দুই যাত্রীর। এর প্রতিবাদ করাতেই বচসা বেধে যায়। যা হাতাহাতির পর্যায়ে পৌঁছে যায়। বিমানকর্মীরা বিষয়টি মেটানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতে ফল উলটো হয়। প্রায় দক্ষযজ্ঞ বেধে যায় বিমানের অন্দরে।

[বিশ্বে ছড়াচ্ছে হিন্দু ধর্ম, অস্ট্রেলিয়ায় শিব-বিষ্ণু মন্দির সংস্কারে বিপুল বরাদ্দ]

অগত্যা বিমানের এক কর্মী পাইলটকে জরুরি অবস্থার খবর দেন। ভিয়েনায় নামে বিমানটি। জানা যায়, দুই যাত্রীর অন্য জায়গায় বসার ব্যবস্থা করা হয়। কিছুক্ষণ ভিয়েনাতে থাকার পর বিমানটি আবার আমস্টারডামের উদ্দেশে রওনা দেয়। তবে যে যাত্রীর জন্য এত কাণ্ড, তাঁর আখেরে কী অবস্থা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। যাত্রীর পরিচয়ও বিমানসংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়নি। যেটুকু জানা গিয়েছে, এরপর কোনও প্রকার অসুবিধা ছাড়াই যাত্রীরা নিজেদের গন্তব্যে পৌঁছতে পেরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন।   

[সৈকতে মিলনে লিপ্ত অবস্থাতেই জ্ঞান হারালেন প্রেমিক যুগল, ভাইরাল ভিডিও]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *