ভারতীয়রা আসলে সবাই হিন্দু, মোহন ভাগবতের মন্তব্যে বিতর্ক তুঙ্গে

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতীয়রা আসলে সবাই হিন্দু। কারণ তাঁরা সবাই হিন্দুস্তানে বসবাস করেন। এর ঐতিহ্যকে সম্মান করেন। পতঞ্জলি যোগপীঠের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনই বিতর্ক উসকে দিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সরসংঘচালক মোহন ভাগবত।

[রোল কলের জবাবে ‘জয় হিন্দ’ বলুক পড়ুয়ারা, নিদান মন্ত্রীর]

তাঁর দাবি,ভারতে বসবাসকারী প্রত্যেক নাগরিক আসলে প্রাথমিকভাবে হিন্দু। সেই অনুষ্ঠানে ভাগবত বলেন, ‘সারা বিশ্ব ভারতীয় সমাজকে হিন্দু বলেই জানে। তাই আমাদের সবার একটিই সত্তা।’ প্রসঙ্গত, গত সোমবার যোগগুরু রামদেব ভাগবতের জন্মদিনে একটি গদা উপহার দেন। সেই গদাকে হিন্দুত্বের ধ্বজা বলে অভিহিত করে তাঁকে হিন্দুধর্মের শিখা উজ্জ্বল রাখার আবেদন করেন।

[চূড়ান্ত শাস্তির মুখে ঋতব্রত, গন্তব্য কি বিজেপি?]

পতঞ্জলির অনুষ্ঠানে ভাগবত বলেন, হিন্দু ধর্মের দরজা সবার জন্য খোলা। যে কোনও ধর্মের মানুষ চাইলে হিন্দু ধর্মে আসতে পারেন। আরএসএস প্রধান বলেন, ‘আমরা ধর্মান্তকরণ করে হিন্দু তৈরি করি না। আমাদের বিশ্বাস, আমাদের পূর্বসূরিরা আসলে হিন্দু ছিলেন। আমরা যে সম্প্রদায় বা ধর্মেরই লোক হই না কেন। যেহেতু আমরা মনে করি, সকলেই আদতে হিন্দু, তাই আজও হিন্দুধর্মের দরজা সবার জন্যই উন্মুক্ত।’

[পোখরানে ক্ষতিগ্রস্ত সদ্য কেনা ‘হাউৎজার’ কামান, উঠছে প্রশ্ন]

গঙ্গারতি উপলক্ষ্যে ও সাধুসন্তদের সঙ্গে দেখা করতে সুরাতগিরি আশ্রমে যান ভাগবত। তাঁকে সেখানে গিয়ে শুভেচ্ছা জানান উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত। ভাগবতকে বই, কেদারনাথ মন্দিরের রেল্পিকা উপহার দেন মুখ্যমন্ত্রী। আশ্রমে ১৯৯৯-এর কারগিল যুদ্ধে শহিদ হওয়া ক্যাপ্টেন বিক্রম বাত্রা ও ক্যাপ্টেন মনোজ পাণ্ডের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন ভাগবত। তাঁদের হাতে তুলে দেন স্মারক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *