কর্ণাটকে সরকার গড়ার সুযোগ না পেলে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার ইঙ্গিত কংগ্রেসের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কর্ণাটকে কী ফের নতুন নাটক? কংগ্রেস-জেডিএস জোট নয়, সরকার গড়ার জন্য ডাক পেতে চলেছে বিজেপিই, রাজ্যপাল ঘনিষ্ঠ এক সুত্রের এমনটাই দাবি। বুধবার সকালেই রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে সরকার গড়ার দাবি জানিয়েছেন বিজেপি পরিষদীয় দলনেতা ইয়েদুরাপ্পা। ইয়েদুরাপ্পার দাবি, সরকার গড়ার জন্য প্রয়োজনীয় বিধায়কদের সমর্থন রয়েছে তাদের কাছে। এমনকি আগামিকালই কর্ণাটকের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ারও দাবি জানিয়েছেন ইয়েদুরাপ্পা।

[কংগ্রেসের সমর্থনে সরকার গড়ুন, কুমারস্বামীকে ফোন মমতার]

এদিকে,  রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে সরকার গড়ার দাবি জানিয়েছেন বিরোধী জোটের নেতা এইচডি কুমারস্বামীও। জোট শিবিরের দাবি, যেহেতু সংখ্যাগরিষ্ঠ বিধায়কের সমর্থন তাদের হাতে রয়েছে তাই সরকার গড়ার জন্য তাদেরই প্রথম ডাক পাওয়া উচিত। আপাতত বল রাজ্যপালের কোর্টে।

[‘জাভড়েকর ভদ্রলোক কে?’, বিধায়কদের ১০০ কোটি ঘুষের অভিযোগ এনে সরব কুমারস্বামী]

সম্প্রতি গোয়া, মণিপুর, মেঘালয়ের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে একক বৃহত্তম দল হওয়া সত্ত্বেও রাজ্যপালের কাছে সরকার গড়ার ডাক পায়নি কংগ্রেস। এই রাজ্যগুলিতে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে সংসদ ভবনে রীতিমতো হইচই বাধিয়ে দেয় রাহুল গান্ধীর দল। সুপ্রিম কোর্টে মামলাও করে কংগ্রেস। যদিও, তাতে খুব একটা লাভ হয়নি। কংগ্রেস শীর্ষ নেতাদের আশঙ্কা এক্ষেত্রেও বিজেপির পক্ষই নিতে পারেন একসময় গুজরাটের মোদী মন্ত্রিসভার মন্ত্রী বাজুভাই বাল্লা । আর যদি তাই হয়, সেক্ষেত্রে ফের আইনি পথের আশ্রয় নিতে পারে কংগ্রেস। সুত্রের খবর, ইতিমধ্যেই দলের শীর্ষ আইনজীবীদের এ বিষয়ে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছে কংগ্রেস নেতৃত্ব । কপিল সিব্বল, অভিষেক মনু সিংভিদের মত দুঁদে আইনজীবীরা শুরু করে দিয়েছেন অঙ্ক কষাও। গোয়া মণিপুরের উদাহরণ দেখিয়েই সুপ্রিম কোর্টে বিজেপিকে মাত করার ছক কষছেন কংগ্রেসের আইনজীবীরা। শুধু আইনি পদক্ষেপেই থেমে না থেকে বিকল্প রাস্তাও খোলা রাখা হচ্ছে। সুপ্রিম কোর্টে ফল না পেলে, রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে কংগ্রেসের। সরকার গড়ার ডাক না পেলে কর্ণাটকের রাজভবনের সামনে জেডিএস ও কংগ্রেস বিধায়করা সম্মিলিতভাবে ধর্নায় বসতে পারে বলেও খবর কংগ্রেস সুত্রে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *