অস্ত্রোপচারে রোগীর শরীরে ভুল গ্রুপের রক্ত, কাঠগড়ায় বেসরকারি হাসপাতাল

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সল্টলেকের নামী বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার জেরে রোগীর  ফুসফুস ও কিডনি নষ্ট হওয়ার অভিযোগ৷ ভুল গ্রুপের রক্ত দেওয়ার জেরেই এই ঘটনা বলে অভিযোগ রোগীর পরিবারের৷ শহর কলকাতার নামী বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ রোগীর পরিবার৷

[রাতভর অভিযানের শেষে সেন্ট পল’স কাণ্ডে ধৃত পাঁচ অভিযুক্ত]

গত ৫ জুন অভিজিৎ সাহা নামে এক যুবক তাঁর স্ত্রীকে কলকাতার নামী একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করান৷ পরীক্ষার পর অস্ত্রোপচারের দিন ধার্য করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷ অস্ত্রোপচারের জন্য মোটা অঙ্কের টাকাও জমা দেন অভিজিৎবাবু৷ অভিযোগ, অস্ত্রোপচারের পরই বাধে বিপত্তি৷ সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রোগীর স্বামী অভিজিৎ সাহা অভিযোগ তুলে জানান, অস্ত্রোপচারের সময় ভুল গ্রুপের রক্ত ব্যবহার করার জেরেই তাঁর স্ত্রীর শারীরিক সমস্যা তৈরি হয়েছে৷ ফুসফুস ও কিডনিতে সংক্রমণ ধরা পড়েছে৷

বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ তুলে রোগীর স্বামী সংবাদ সংস্থাকে বলেন, ‘‘আমি গত ৫ জুন আমার স্ত্রীকে কলম্বিয়া এশিয়া হাসপাতালে ভরতি করি৷ পরে অস্ত্রোপচারের ব্যবস্থা করা হয়৷ কিন্তু, অস্ত্রোপচারের সময় ভুল গ্রুপের রক্ত ব্যবহারের জেরে আমার স্ত্রীর ফুসফুস ও কিডনিতে সংক্রামণ দেখা দিয়েছে৷ আমি যখন গোটা বিষয়টির প্রতিবাদ করি, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উল্টে চাপ দিতে শুরু করে৷ বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে টাকা না মেটালে রোগীর চিকিৎসা বন্ধ করে দেওয়া হবে হুমকি দেওয়া হয়৷’’ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে এহেন হুমকির শিকার হওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হন রোগীর স্বামী৷ চিঠি লিখে মুখ্যমন্ত্রীকে গোটা ঘটনায় হস্তক্ষেপ করার আরজি জানান তিনি৷ রোগীর পরিবারের তরফে ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর সচিবালয়, স্বাস্থ্যসচিব, বিধাননগর দক্ষিণ থানায় অভিযোগ জানানো হয়েছে৷ তবে, রোগীকে ভুল গ্রুপের রক্ত দেওয়ার প্রসঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি৷

[শহরের ৫ এলাকায় সরকারি ফুড জোন, মিলবে ফুচকা-ঝালমুড়ি-চপ]

হাসপাতালের বিরুদ্ধে অমানবিক আচরণের ঘটনা এই প্রথম নয়৷ বহুবার বহু বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে উঠেছে লম্বাচওড়া বিল ধরানোর অভিযোগ৷ কলম্বিয়া এশিয়ায় বিরুদ্ধে এর আগে তিন মাস ধরে ষাটোর্ধ্ব রোগীকে আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছে৷  পরে হাই কোর্টের রায়ে ছাড়া পান রোগী৷ এবার অস্ত্রোপচারের সময় ভুল গ্রুপের ব্যবহার করে রোগীকে ফুসফুস ও কিডনি নষ্টের অভিযোগ উঠল একই হাসপাতালের বিরুদ্ধে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *