নববর্ষে মমতার উপহার দুই জেলা ও দুই মহকুমা

নিজস্ব সংবাদদাতা, খড়গপুর: নববর্ষের উপহার হিসাবে রাজ্য পাচ্ছে দু’টি নতুন জেলা ও দু’টি নতুন মহকুমা৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ভেঙে হচ্ছে নতুন জেলা ঝাড়গ্রাম৷ বর্ধমানের শিল্পাঞ্চলকে নিয়ে আলাদা জেলা হচ্ছে বর্ধমান পশ্চিম৷ পুরুলিয়া পাচ্ছে দু’টি নতুন মহকুমা মানবাজার ও ঝালদা৷ রাজ্যবাসীকে এই উপহার তুলে দিতে সোমবার থেকে জেলা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

আজ খড়গপুরে প্রশাসনিক বৈঠক ও জনসভার পর তিনি চলে যাবেন ঝাড়গ্রাম৷ রাত পোহালেই ঝাড়গ্রামকে নতুন জেলা হিসাবে ঘোষণা করবেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ঝাড়গ্রাম থেকে বাঁকুড়া হয়ে তিনি যাবেন পুরুলিয়া৷ বাংলা নববর্ষের উপহার হিসাবে সাত তারিখ পুরুলিয়ার মানুষকে মানবাজার ও ঝালদা দু’টি নতুন মহকুমা উপহার দেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এর আগে মিরিককে দার্জিলিং জেলার মহকুমা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

[নিউটাউনে TCS বিল্ডিংয়ের কাছে ভয়াবহ আগুন, মৃত এক]

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠক ও সভাকে কেন্দ্র করে সেজে উঠেছে খড়গপুর৷ সিসিটিভি ক্যামেরায় নজরবন্দি হতে চলেছে খড়গপুর শহর৷ আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত দিয়ে এই প্রকল্পের উদ্বোধন হতে চলেছে৷ সোমবার মুখ্যমন্ত্রী খড়গপুরে আসছেন৷ প্রথমে তিনি প্রশাসনিক বৈঠক করবেন৷ পরে খড়গপুর কলেজ মাঠে সিসিটিভি-সহ ১৩১টি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন৷ রেলশহর খড়গপুরে মাঝেমধ্যেই অপরাধের জন্য শিরোনামে চলে আসে৷ মাস কয়েক আগেই এখানে খুন হন শ্রীনু নায়ডু৷ মাফিয়ারাজ রেল শহরে নতুন কিছু নয়৷ এই অবস্থায় গোটা খড়গপুর শহরে ১০০টি সিসিটিভি বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন৷

আপাতত সোমবার ৩২টি নজরদারি ক্যামেরার উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী৷ শহরের যে সব এলাকায় ব্যাঙ্কের শাখা বেশি রয়েছে, যেমন ঝাপেটাপুর, খরিদা, মালঞ্চ, কৌশল্যা, গোলবাজার, ইন্দা প্রভৃতি এলাকায় এখন সিসিটিভি বসানো হচ্ছে৷ পরবর্তী পর্যায়ে বিভিন্ন জনবহুল এলাকা ও বাজারে বসানো হবে নজরদারি ক্যামেরা৷ শেষ পর্যায়ে শহরের প্রবেশপথে বসবে এই ক্যামেরা৷ এ প্রসঙ্গে খড়গপুরের পুরপ্রধান প্রদীপ সরকার বলেন, “শহরের অপরাধ কমাতে সিসিটিভি বসানো হচ্ছে৷” অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খড়গপুর) ওয়াই রঘুবংশী বলেন, “অপরাধ ঠেকাতে ও অপরাধীদের ধরতে এই ক্যামেরা প্রচুর সাহায্য করবে৷ এই ক্যামেরাগুলি জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় ও পুরসভার কার্যালয় থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে৷”

সিসিটিভি ছাড়াও আরও বেশ কিছু প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করবেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল, নারায়ণগড় ব্লকের কুঁচিগেড়িয়া খালের উপর নতুন সেতু৷ এই সেতুটি চালু হলে কুনারপুর ও নারমা গ্রাম পঞ্চায়েতের ৩০টি গ্রামের মানুষ উপকৃত হবেন৷ নারায়ণগড় পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি গণেশ মাইতি বলেন, “সোমবার মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর মঙ্গলবার তা জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে৷” এই সেতুটি ছাড়াও মকরমপুর থেকে কেশিয়াড়ি পর্যন্ত রাস্তা, মেদিনী খালের উপর সেতু, ডেবরা-পিংলায় মিনি ইন্ডোর গেম কাম রিক্রিয়েশন সেন্টারেরও উদ্বোধন করবেন মমতা৷

[ফের প্রকাশ্যে ‘আজাদি’ স্লোগান তুললেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *