মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে আধার কার্ডের আদল! রাতারাতি সেলিব্রিটি এই ব্যক্তি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  বিয়ের কার্ডেও আধারের আদল!  মেয়ের বিয়েতে এমনই অভিনব কাণ্ড ঘটিয়ে এখন রীতিমতো সেলিব্রিটি বনে গিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের বীরেন্দ্র তিওয়ারি। তাঁর মেয়ের বিয়ের কার্ডটি হয়ে উঠেছে ‘টক অফ দ্য টাউন’।

[দলিত বিয়ে করলে শর্ত ছাড়াই আড়াই লক্ষ, নির্বাচনী মরশুমে দরাজ কেন্দ্র]

বীরেন্দ্র তিওয়ারি পেশায় কৃষিবিজ্ঞানী। মধ্যপ্রদেশের কাটনি জেলায় ভিলায়েতকালান গ্রামে থাকেন। দিন কয়েক বাদে তাঁর মেয়ের বিয়ে। বিয়েতে আত্মীয়, বন্ধু, পরিচিতদের নিমন্ত্রণের কার্ড পাঠিয়েছেন তিনি। আর সেই কার্ডের অভিনবত্ব নজর কেড়েছে সকলের। কী এমন অভিনবত্ব রয়েছে বিয়ের কার্ডে?  বিয়ের কার্ডটি ছাপানো হয়েছে আধার কার্ডের আদলে। জনমানসে আধার কার্ড নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে এই অভিনব কার্ড ছাপিয়েছেন বীরেন্দ্র। তিনি বলেন, ‘আমি জীবনে যাই করি না কেন, সবসময় সমাজের কল্যাণের জন্য কিছু বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করি। তাই মেয়ের বিয়ের কার্ডের জন্য এমন অভিনব থিম বেছে নিয়েছি।’ শুধু অভিনবত্বই নয়, আধার কার্ডের আদলে বিয়ের কার্ড ছাপানোয় কাগজও  বেঁচে গিয়েছে দাবি করেছেন বীরেন্দ্র।

[যোগী আদিত্যনাথকেই ‘বিয়ে’ করলেন সীতাপুরের এই মহিলা!]

নিজের গ্রামে সাদি সুবিধা কেন্দ্র নামে একটি সংস্থা চালান বীরেন্দ্র। বাবা-মায়েদের সন্তানের জন্য উপযুক্ত পাত্র বা পাত্রীর সন্ধান দিয়ে থাকে সংস্থাটি। জানা গিয়েছে, সেই সংস্থায় বিয়ের জন্য যাঁরা যোগাযোগ করেন, তাঁদের বিয়ের কার্ডে সমাজ সচেতনতামূলক কোনও বার্তা তুলতে ধরার অনুরোধ করেন বীরেন্দ্র। তিনি জানিয়েছেন, প্রথমে মেয়ের বিয়ের কার্ডটি ক্যালেন্ডারের আদলে ছাপানোর পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু, আধার কার্ডে গুরুত্বের কথা ভেবে পরিকল্পনা বদলে ফেলেন। তবে বিয়েতেই নয়, অন্যভাবেও বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজ করেন বীরেন্দ্র তিওয়ারি। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, নিজের বাবার মৃত্যুর পর, তাঁর স্মরণে এলাকায় ১০০টি চারা গাছ লাগিয়েছিলেন বীরেন্দ্র। নিজের জন্মদিনটিও পণবিরোধী দিবস হিসেবে পালন করেন তিনি।

[এবার ছাত্রীদের জিন্স পরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হল এই কলেজে]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *