এবার পরমাণু বোমায় জাপান ডুবিয়ে দেওয়ার হুমকি কিম জংয়ের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতিনিয়ত আরও উত্তপ্ত হচ্ছে উত্তর পূর্ব এশিয়ার পরিস্থিতি। দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকার সঙ্গে বিরোধিতা তো ছিলই, এবার প্রকাশ্যে আরেক প্রতিবেশী দেশ জাপানকে হুঁশিয়ারি দিল উত্তর কোরিয়া। পরমাণু হামলা চালিয়ে উড়িয়ে দেওয়া হবে গোটা দেশটিকেই। বৃহস্পতিবার এমনটাই হুমকি দিল কিম জং উন প্রশাসন।

[উত্তর কোরিয়াকে সবক শেখাতে অভিযানের ইঙ্গিত ট্রাম্পের]

সরকার পরিচালিত সংবাদপত্রে প্রকাশিত একটি খবরে কোরিয়া-প্যাসিফিক শান্তি কমিটিকে উল্লেখ করে বলা হয়েছে উত্তর কোরিয়া যথেষ্ট স্বনির্ভরশীল। এরপরই সেখানে লেখা হয়েছে, ‘জাপানের আমাদের কাছাকাছি থাকার কোনও প্রয়োজন নেই। আশপাশের চারটি দ্বীপে পরমাণু বোমা ফেলে সেগুলিকে সমুদ্রে ডুবিয়ে দেওয়া উচিত।’ এর পাশাপাশি চিরশত্রু আমেরিকাকেও একই হুমকি দিয়েছে কিম প্রশাসন। যদিও এর পালটা হিসেবে ওয়াশিংটন এখনই কোনও বিবৃতি প্রকাশ করেনি। এই মুহূর্তে বুলেট ট্রেনের উদ্বোধনের জন্য ভারত সফরে রয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী। এব্যাপারে তিনি মুখ খোলেননি। তবে জাপান সরকারের মুখপাত্র ইয়োশিহিদে সুগা এই ব্যাপারটিকে বেশি গুরুত্ব দিতে চাননি। তাঁর মতে, কেবলমাত্র অশান্তি সৃষ্টি এবং ওই এলাকার শান্তি ক্ষুণ্ন করতেই উত্তর কোরিয়ার এই ধরনের হুমকি।

[কিমের মাথা কেটে আনতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালাবে সিওল]

এর আগে একটি পরমাণু বোমা পরীক্ষা করেছিল উত্তর কোরিয়া, যা কিনা জাপানের উপর দিয়ে উড়ে গিয়েছিল। দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকার যৌথ মহড়ার জবাব দিতেই ওই পরমাণু পরীক্ষা জানিয়েছিল পিয়ংইয়ং। পাশাপাশি হুঁশিয়ারি দিয়েছিল প্রয়োজনে মার্কিন দ্বীপ গুয়ামকে পরমাণু বোমা নিক্ষেপ করে উড়িয়ে দিতেও কোনও কসুর করবে না তারা। রাজধানী পিয়ংইয়ং থেকে ব্যালিস্টিক মিসাইল উৎক্ষেপণ করে কিমের সেনা। জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের উপর দিয়ে বেরিয়ে যায় উত্তর কোরিয়ার ছোড়া ওই মিসাইলটি। জাপানি ব়্যাডারে ক্ষেপণাস্ত্রটি ধরা পড়তেই ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। তবে কোনও ক্ষতি না করে অবশ্য মাঝ সমুদ্রে আছড়ে পড়েছিল ওই মিসাইলটি। তারপরই কমিউনিস্ট দেশটিকে কড়া ভাষায় বার্তা দিয়েছিলেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে।

রাষ্ট্রসংঘের নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে একের পর এক পরমাণু পরীক্ষা করে চলেছে কিম জং উন প্রশাসন। তাতেই বেজায় চটেছে আমেরিকা। এমনকী পিয়ংইয়ং-এর দীর্ঘদিনের সঙ্গী বেজিংও তাদের পাশে দাঁড়ায়নি। তবুও থামছেন না কিম। কয়েকদিন আগেই সব কিছু হেলায় উড়িয়ে ষষ্ঠ পারমাণবিক বোমার পরীক্ষামূলক বিস্ফোরণ ঘটায় উত্তর কোরিয়া। বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে দক্ষিণ কোরিয়াও। বিস্ফোরণের তীব্রতা এত বেশি ছিল যে গোটা এলাকা ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে। রিখটার স্কেলে যার তীব্রতা ছিল ৬.৩।উত্তর কোরিয়ার এই তোপের জবাব জাপান কীভাবে দেয় তা নিয়ে শুরু হয়েছে কৌতুহল।

[আমেরিকা-উত্তর কোরিয়ার সংঘাতই কি ডেকে আনবে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ?]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *