তাইওয়ানের জলসীমায় চিনা রণতরী, যুদ্ধের দামামা দক্ষিণ চিন সাগরে

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাইওয়ানের জলসীমানায় ঢুকে পড়েছে চিনা রণতরী। রেডারে সেই ছবি ধরা পড়তেই তড়িঘড়ি যুদ্ধজাহাজ, রণতরী পাঠালো তাইপেই। বেজিং ও তাইওয়ানের মধ্যে এখন ঘোরতর যুদ্ধ যেন কার্যত সময়ের অপেক্ষা, বলছেন সমর বিশেষজ্ঞরা!

(চিনা উপকূলে রণতরী পাঠিয়ে সম্মুখ সমরে তাইওয়ান)

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে খবর, সোভিয়েতে নির্মিত চিনা লিয়াওনিং রণতরী দক্ষিণ চিন সাগরে রুটিন মহড়া সেরে ফেরার সময় তাইওয়ানের জলসীমায় ঢুকে পড়ে। শুধু তাই নয়, তাইওয়ানের দক্ষিণ-পূর্বে এয়ার ডিফেন্স আইডেন্টিফিকেশন জোনেও (এডিআইজেড) ঢুকে পড়ে চিনা রণতরী। আর একটুও দেরি না করে তাইওয়ান প্রশাসন তড়িঘড়ি সামরিক সাজ-সরঞ্জাম প্রস্তুত করে ফেলে। পাঠানো হয় যুদ্ধবিমান ও রণতরী।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র চেন চুং চি বলেছেন, চিন ও তাইওয়ানের মধ্যে যে সূক্ষ জলসীমা রয়েছে, সেখানে চিনা রণতরী ঢুকে পড়েছে। চিনা যুদ্ধজাহাজের গতিবিধির উপর নজরদারি চালাতেই তাইওয়ান রণতরী ও যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছে বলে তাইপেই প্রশাসন সূত্রে খবর। বেজিংয়ের সঙ্গে এখনও শান্তি বজায় রাখার পক্ষেই তাইপেই।

(অল্পের জন্য এড়ানো গেল চিন-তাইওয়ান যুদ্ধ!)

তাইওয়ানের সঙ্গে চিনের সম্পর্ক এমনিতেই মধুর নয়। জন্মলগ্ন থেকেই চলে আসছে বৈরিতা। সম্প্রতি চিনকে অগ্রাহ্য করে পূর্ণ স্বাধীনতা ঘোষণা করে তাইওয়ান। চিন যদিও তাইওয়ানকে স্বাধীন, সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি কোনও দিনই। কিন্তু আমেরিকা-সহ বেশ কয়েকটি দেশ তাইওয়ানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রেখে চলে। চিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে আমেরিকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা আরও বাড়িয়ে তাদের কাছ থেকে মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম কিনে মহড়ার প্রস্তুতিও শুরু করে তাইপেই।

(ট্রাম্পের ঐতিহাসিক ফোনে বেজায় চটেছে চিন)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *