৩০ শ্রাবণ  ১৪২৫  বুধবার ১৫ আগস্ট ২০১৮  |  ৭২ তম স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অনলাইনে লাগামহীন কেনাকাটা। বিলে টাকার অঙ্ক বেড়েছে তরতরিয়ে। উদ্ধার পেতে এবার নিজেরই অপহরণের গল্প ফাঁদলেন প্রথম বর্ষের এক ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র। সন্দীপ রায় নামে ওই যুবক আপাতত পুলিশের জালে।

সন্তানের গায়ের রং ফর্সা, অজুহাতে শিশুসন্তানকে খুন করল বাবা! ]

জানা যাচ্ছে, সোনারপুরের বাসিন্দা সন্দীপ। দিন কয়েক আগে বাড়িতে তিনি ফোন করে জানিয়েছিলেন, দুষ্কৃতীরা তাঁকে অপহরণ করেছে। মুক্তিপণ হিসেবে চাওয়া হচ্ছে এক লক্ষ ষাট হাজার টাকা। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব যেন সে টাকার জোগাড় করে তাঁকে ছাড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। কেননা তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হচ্ছে। মধ্যস্থতাকারী হিসেবে সোনারপুরেই এক বাসিন্দার নাম জানায় সে। ঘটনায়  পুলিশের দ্বারস্থ হয় পরিবার। তদন্তে নেমে বেশ কয়েকটি অসঙ্গতি চোখে পড়ে পুলিশের। প্রথমত, যার কাছে টাকা দিতে বলা হয়েছে সে সোনারপুরেরই লোক। ওই যুবকও সোনারপুরের বাসিন্দা। অপহরণের গল্প এখান থেকেই অনেকটা ফিকে হতে শুরু করে। তাছাড়া মুক্তিপণ হিসেবে যে টাকা চাওয়া হয়েছে, তার অঙ্কেও পুলিশের খটকা লাগে।

ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু ছাত্রের, বেলঘরিয়ায় যাত্রীদের অবরোধে বিপর্যস্ত পরিষেবা ]

তদন্তে এগিয়ে যুবকের এক বন্ধুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। সেখান থেকেই ছাত্রের হদিশ মেলে। জানা যায়, নিউ গড়িয়া এলাকায় তিনি লুকিয়েছিলেন। কেউ তাঁকে অপহরণ করেনি। উলটে নিজেই নিজেকে অপহরণের গল্প ফেঁদেছেন। উদ্দেশ্য, বাড়ি থেকে টাকা আদায়। জানা যাচ্ছে, অনলাইনে দেদার কেনাকাটা করতেন ওই যুবক। সেই বিল মেটাতে না পেরেই এরকম হটকারি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। আপাতত ওই যুবক ও তার বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ। তবে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে অনলাইনে কেনাকাটার ঝোঁক ও তার ফলে এই ধরনের মারাত্মক অপরাধ প্রবণতা ক্রমশ ভাবিয়ে তুলছে সমাজকে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং