২০২৬ বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্বে আমেরিকা-মেক্সিকো-কানাডা, সিদ্ধান্ত ফিফার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোটা বিশ্ব কাঁপছে ফুটবল জ্বরে। কয়েক প্রহরের অপেক্ষা, তারপরই রাশিয়ায় শুরু হবে ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ। এরই মধ্যে ফিফার নতুন ঘোষণা আরও চওড়া করল মার্কিন ফুটবলপ্রেমীদের হাসি। ২০২৬ বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বত্ব পেল আমেরিকা, মেক্সিকো এবং কানাডা। আগামী বিশ্বকাপের জন্য এই তিনটি দেশ একসঙ্গে দরপত্র দিয়েছিল যাকে বলা হচ্ছিল ‘ইউনাইটেড বিড’।  প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিল মরক্কো। ফিফা সদস্যদের মধ্যে ভোটাভুটিতে জিত হল ইউনাইটেড বিডেরই।

[বিশ্বকাপে এই চার দলকেই এগিয়ে রাখছেন সুনীল, তালিকায় নেই মেসির আর্জেন্টিনা!]

ফিফা তালিকাভুক্ত ২১১ টি দেশের প্রতিনিধিরা ভোটাভুটির মাধ্যমে ঠিক করেন কোন দেশে বিশ্বকাপ আয়োজিত হবে। ২১০ ভোটের মধ্যে আমেরিকা-মেক্সিকো-কানাডার যৌথ আয়োজনের পক্ষে সায় দিল ১৩৪ দেশের প্রতিনিধিরা। মরক্কোর পক্ষে ভোট পড়েছে ৬৫ টি। ২০২৬ বিশ্বকাপ ফিফার ইতিহাসে বৃহত্তম টুর্নামেন্ট হতে চলেছে। এই প্রথম বিশ্বকাপে অংশ নেবে ৪৮ টি দেশ। ৩৪ দিন ধরে  মোট ৮০ টি ম্যাচ আয়োজিত হবে এই টুর্নামেন্টে।

[নজিরবিহীন ঘটনা, বিশ্বকাপ শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে বরখাস্ত স্পেনের কোচ]

মোট ১৬ টি শহরে খেলাগুলি আয়োজিত হবে। তাঁর মধ্যে ১০ টি শহর আমেরিকার। বাকি ৬ টি শহর মেক্সিকো ও কানাডার। মার্কিন মুলুকে আয়োজিত হবে ৬০ টি ম্যাচ। ১০টি করে ম্যাচ আয়োজিত হবে কানাডা ও মেক্সিকোতে। ফাইনাল আয়োজিত হবে নিউ ইয়র্কের মেটলাইফ স্টেডিয়ামে। এর আগে মেক্সিকো এককভাবে দু’বার (১৯৭০ ও ১৯৮৪) এবং আমেরিকা এককভাবে বিশ্বকাপের আয়োজন করেছিল একবার (১৯৯৪)। তবে, কানাডা এখনও একবারও পুরুষদের বিশ্বকাপ আয়োজন করেনি। রাজনৈতিকভাবে এই তিন দেশের সম্পর্ক এই মুহূর্তে খুব একটা ভালো নয়, ফলে কতটা সঠিকভাবে টুর্নামেন্ট আয়োজিত হবে তা নিয়ে সন্দিহান ফুটবলপ্রেমীদের একাংশ। যদিও, তিন দেশের ফুটবল কর্তাদের আশা রাজনৈতিক সম্পর্ককে ছাপিয়ে যাবে ফুটবলের আবেগ। তাছাড়া বিশ্বকাপ আয়োজনের ফলে আর্থিকভাবেও লাভবান হবে সংস্থাগুলি। আয়োজকদের আশা এই টুর্নামেন্ট থেকে ১.৪ বিলিয়ন ডলার রোজগার হবে তিন দেশের। অন্যদিকে, ফিফার রোজগার বেড়ে দাঁড়াবে ৮.১ বিলিয়ন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *