BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মানবসেবার ফল, ড. আবদুল কালাম স্মৃতি পুরস্কার পেলেন শেখ হাসিনা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 17, 2019 6:23 pm|    Updated: September 17, 2019 6:24 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ‘ক্ষমতা ভোগ করার জন্য নয়, মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। কতগুলো লক্ষ্য স্থির করে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, সেটা অর্জন করতে পারব।’ সোমবার বিকেলে
গণভবনে ড. আবদুল কালাম স্মৃতি আন্তর্জাতিক শ্রেষ্ঠত্ব পুরস্কার, ২০১৯ নেওয়ার পরেই এই মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে এলে নিজের বাড়িতে এসেছি বলেই মনে হয়: শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় ]

গতকাল বঙ্গবন্ধু কন্যার হাতে এই পদকটি তুলে দেন ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনালের প্রধান উপদেষ্টা টি পি শ্রীনিবাসন ও সংস্থাটির চেয়ারপার্সন দীনা দাস। এই পুরস্কার দেশের জনগণকে উৎসর্গ করে হাসিনা বলেন, এই
পুরস্কার আগামীতে জনকল্যাণের কাজে আরও উৎসাহ জোগাবে।

গতকালের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে চান বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘২১০০ সাল পর্যন্ত আমাদের পরিকল্পনা আছে। বাংলাদেশের মানুষ যাতে উন্নত
জীবন পায়, সেই লক্ষ্যে আমরা দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের ২৯ তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ। ২০১৯ সালে আমাদের মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে ১৯০৯ মার্কিন ডলারে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে
জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৮ দশমিক এক শতাংশ। এটাকে ১০-এ নিয়ে যেতে চাই। ইতিমধ্যেই দেশের দারিদ্র্য এখন ২১ শতাংশে নেমে এসেছে।’

[আরও পড়ুন: ঘুরপথে ভোটার তালিকাতেও নাম তুলছে রোহিঙ্গারা, তদন্তে বাংলাদেশ পুলিশ]

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক নিয়ে কথা বলতে গিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করার জন্য ভারতকে কৃতজ্ঞতা জানাই। আমরা সবসময় বন্ধুসুলভ সম্পর্ক ধরে রাখার চেষ্টা করেছি।
বাংলাদেশ ও ভারত সম্পর্ক গত এক দশকে অনেক উঁচুতে পৌঁছেছে। জাতির পিতার ইচ্ছা ছিল, সোনার বাংলা গড়ে তোলা। মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা। আর এই জন্য তিনি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন। এ দেশের
মানুষের কথা মনে করেই তিনি স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। আর মানুষ যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। আসলে তিনি এ দেশের মানুষকে গভীরভাবে ভালোবাসতেন। ‘

ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ভারতরত্ন ড. এপিজে আবদুল কালামের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে চালু হয় ড. কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড, ২০১৯। প্রতিবছরই বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্ট
মানুষদের এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এবার তা পেলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement