৪ মাঘ  ১৪২৫  শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: নির্বাচনের আগে ফের বাংলাদেশে আক্রান্ত হিন্দুরা৷ এবার উত্তরের জনপদ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার একটি হিন্দু বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ আতঙ্ক ছড়িয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে৷  

 

জানা গিয়েছে, এনিয়ে ঠাকুরগাঁও উপজেলায় হামলা হয়েছে তিনটি হিন্দু পরিবারের উপর৷ বৃহস্পতিবার রাতে আখানগর ইউনিয়নের ঝাপড়তলি গ্রামের আনন্দ চন্দ্র বর্মণের বাড়িতে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। এছাড়াও শুক্রবার সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের সিংগিয়া শাহপাড়া গ্রামে কৃষ্ণ ঘোষের এবং আখানগর ইউনিয়নের মধ্যঝাড়গাঁও গ্রামের যাত্রু বর্মণের বাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। আক্রান্ত আনন্দ চন্দ্র বর্মণ বলেন, “হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের পরিকল্পনামাফিক আতঙ্কিত করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে৷ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমরা যেন ভোট দিতে যেতে না পারি তাই এই হামলা৷ ” আখানগর ইউনিয়ন পরিষদের সভাপতি নুরুল ইসলাম বলেন, “এ নিয়ে আমার এলাকার দুটি হিন্দু বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হল। দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করুক পুলিশ।”

নির্বাচনের আবহে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা হতে পারে বলে আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ৷ গোয়েন্দা রিপোর্টে এমনটাই উল্লেখ করা ছিল৷ পরিস্থিতি অশান্ত করতে হিন্দুদের নিশানা করেত পারে আইএসআই মদতপুষ্ট বিএনপি ও জামাত বলে মনে করছেন অনেকেই৷ কারণ স্বাভাবিকভাবেই সংখ্যালঘুদের বড় অংশ আওয়ামি লিগের সমর্থক৷ উল্লেখ্য, আগামী ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশে ভোটগ্রহণ হবে৷ সেই মর্মে দেশজুড়ে বাড়িয়ে তোলা হয়েছে নিরাপত্তা৷ প্রতিটি নির্বাচনের আগে ও ফলাফল প্রকাশের পরই আক্রমণ নেমে আসে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টানদের উপর৷ বিজয় মিছিলের নামে বাড়িতে ঢুকে হামলা, গায়ের জোরে রং মাখিয়ে দেওয়া দেওয়া ও কটূক্তি করার মতো ঘটনা নতুন কিছু নয়৷ ঐক্য পরিষদের দাবি, নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে, ততই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে বাংলাদেশের বসবাসকারী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে৷ আর সেই কারণে নির্বাচনের আগে সংখ্যালঘু মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশন, সরকার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দেশের প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছে চিঠি পাঠিয়েও আবেদন জানিয়েছে ঐক্য পরিষদ৷     

[‘আর পারব না’, আকস্মিক ইরাক সফরে গিয়ে কেন এমন বললেন ট্রাম্প?]  

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং