BREAKING NEWS

১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বিস্ফোরক কিনে বোমা বাঁধার প্রস্তুতি, কবুল মহেশতলায় অগ্নিকাণ্ডে ধৃতদের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 11, 2019 2:33 pm|    Updated: March 11, 2019 8:05 pm

2 arrested in blast of at a factory in Maheshtola

সুরজিৎ দেব, ডায়মন্ড হারবার : দক্ষিণ ২৪ পরগনার মহেশতলার নুঙ্গির চিংড়িপোতায় বেআইনি বাজি কারখানায় বিস্ফোরণে মৃত্যু হল আরও একজনের। মৃতের নাম খোকন বর্মন। বিস্ফোরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছে দু’জন। ধৃতদের নাম রমেন সাউ, তরুণ দাস। রবিবার দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই রমেনকে আটক করে জেরা করে মহেশতলা থানার পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদেই উঠে আসে তরুণ দাস নামে আরেকজনের নাম। পুলিশ সূত্রে খবর, রমেন জেরায় জানিয়েছে যে, সে তরুণের কাছে থেকেই ৬ ড্রাম বিস্ফোরক কিনেছিল। এরপর তরুণের খোঁজে নামে পুলিশ। মহেশতলা থানা এলাকার বড়খানতোলায় তরুণের বাড়ি। রাতে সেই বাড়ি থেকেই তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় রমেন সাউকেও। 

গভীর রাতে কড়া নেড়ে ধান সাবাড় করছে দলমার হাতি

রবিবার দুপুর নাগাদ দক্ষিণ ২৪ পরগনার নুঙ্গির চিংড়িপোতায় বারুদ ভরতি ড্রামে আগুন লেগে বিস্ফোরণ ঘটে এক কারখানায়। এলাকায় পরপর দুটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পান স্থানীয়রা। তাঁরা বেরিয়ে দেখেন, দাউদাউ করে জ্বলছে সামনের একটি কারখানা। খবর পেয়ে মহেশতলা, বজবজ ও বেহালা থেকে দমকলের তিনটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে যায়। বিস্ফোরণে দগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় কারখানার এক শ্রমিকের। গুরুতর আহত আরও দুই কর্মী। কারখানার সামনের রাস্তা সংকীর্ণ হওয়ায় দমকলের ইঞ্জিন প্রবেশ করতে বেশ সমস্যা তৈরি হয়। প্রাথমিকভাবে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন স্থানীয়রাই। দমকল ও স্থানীয়দের বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। জানা গিয়েছে, ওই বেআইনি বাজি কারখানায় ছ’টি ড্রামে বারুদ মজুত করা ছিল। পুলিশ সূত্রে খবর, ২টি ড্রামে মিশ্রণটি তৈরির সময়েই  আগুন লেগে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। সেসময় কারখানায় ছিলেন তিনজন কর্মী। স্থানীয়দের তৎপরতায় কারখানার ভিতর থেকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে ওই কর্মীদের। তাঁদের প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই মৃত্যু হয়েছে অনুপ দলুই নামে এক শ্রমিকের।  অবস্থার অবনতি হওয়ায় বাকি ২ জনকে এমআর বাঙুর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে খোকন বর্মন নামে আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।   

জেঠু অশোক ভট্টাচার্যের চাপ! বিজেপিতে যোগ দিয়েও ডিগবাজি অর্কদীপের

কী কারণে বিস্ফোরক ভরতি ড্রাম কিনে বিস্ফোরক তৈরি করছিল রমেন, কেনই বা তা মজুত রেখেছিল তরুণ, এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ। ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হওয়ার আগের মুহূর্তেই দক্ষিণ ২৪ পরগনায় এধরনের ঘটনায় সংশয় বাড়ছে আরও। এমনিতেই রাজনৈতিকভাবে উত্তেজনাপ্রবণ এলাকা এই জেলা। নির্বাচনের সময় অশান্তি উসকে দিতেই কি বিস্ফোরক মজুত করা? দু’জনকে হেফাজতে নিয়ে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ।   

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে