১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

মুর্শিদাবাদে শাসকদলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষের জের, বহিষ্কৃত অঞ্চল সভাপতি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 3, 2020 4:34 pm|    Updated: June 3, 2020 4:34 pm

An Images

শাহজাদ হোসেন, ফরাক্কা: অঞ্চল সভাপতি বদলকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল মুর্শিদাবাদের রঘুনাথগঞ্জ। সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই বুধবার দল থেকে বহিষ্কার করা হল দীর্ঘদিনের অঞ্চল সভাপতি ও পঞ্চায়েত প্রধান বাপি ঘোষকে। যার জেরে দলে ভাঙন ধরেছে বলেই মনে করছেন অনেকে। 

মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের রঘুনাথগঞ্জ ২ নম্বর ব্লকের জোতকমলের অঞ্চল সভাপতি বাপি ঘোষকে সরিয়ে নতুন কারও হাতে ওই পদের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার জন্য কার্যালয়ে একটি বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই বাপি ঘোষের দলের সদস্যদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ে অপরপক্ষ। দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষের উপর চলে হামলা। গুরুতর জখম হন ৮ জন। এই ঘটনাটি রাতেই জানানো হয় মুর্শিদাবাদ তৃণমূলের সভাপতি আবু তাহের খানকে। এরপর বুধবার সকালে জেলা সভাপতি আবু তাহের খান, বিধায়ক আকরুজ্জামান ও ব্লক সভাপতি সমিরুদ্দিন বিশ্বাসের উপস্থিতিতে উপস্থিতিতে ফের একটি বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

[আরও পড়ুন: মমতাই অনুপ্রেরণা, বিবাহবার্ষিকী ভুলে সুন্দরবনের দুর্গতদের পাশে বসিরহাটের শিক্ষক দম্পতি]

জানা গিয়েছে, ওই বেঠকেই অঞ্চল সভাপতি তথা পঞ্চায়েত প্রধান বাপি ঘোষকে বহিষ্কার করা হয়। এই ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জঙ্গিপুর মহকুমার তৃণমূল সভাপতি বিকাশ নন্দ। তাঁর কথায়, জেলা সভাপতি ঘটনাস্থলে গিয়েছেন, বৈঠক করেছেন এ বিষয়ে কিছুই জানা ছিল না তাঁর। পাশাপাশি, এভাবে কাউকে দল থেকে বহিষ্কার করা যায় না বলেও জানান তিনি। প্রসঙ্গত, পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবারের সংঘর্ষের ঘটনায় বাপি ঘোষ-সহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়েছে ৩ জন।

[আরও পড়ুন: ফেসবুকে গানের ভিডিও পোস্টই ফেরাল ভাগ্য, বলিউডে পা রাখছে হুগলির আদিবাসী কিশোরী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement