BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৫ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এবার ভেজাল হলুদ কারখানার হদিশ ফরাক্কায়, গ্রেপ্তার এক

Published by: Sayani Sen |    Posted: December 1, 2018 10:54 am|    Updated: December 1, 2018 10:55 am

Adulterated turmeric factory busted

কল্যাণ চন্দ্র, বহরমপুর: ভেজাল ছানা, ভাগাড়ের মাংসের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার হদিশ মিলল ভেজাল হলুদের কারখানার৷ শনিবার সকালে এই কারখানার খোঁজ পাওয়ার পরই উত্তেজনা ছড়ায় মুর্শিদাবাদের ফরাক্কায়৷ কারখানা মালিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ উদ্ধার করা হয়েছে ট্রাকবোঝাই হলুদ গুঁড়ো৷

[শান্তিপুর বিষমদ কাণ্ডেও হুঁশ ফেরেনি, ঘাটালে রমরমিয়ে চলছে চোলাই কারবার]

ফরাক্কার অর্জুনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভবানীপুরে বাসিন্দারা জানতেন ওই এলাকায় হলুদ গুঁড়ো তৈরির কারখানা রয়েছে৷ মধ্যবিত্তের সংসারের খরচের বোঝা কিছুটা কমাতে ওই কারখানা থেকে সস্তায় হলুদ গুঁড়ো কিনতেন স্থানীয়রা৷ এছাড়া ওই কারখানা থেকে হলুদ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে রপ্তানিও করা হত৷ গোপন সূত্রে পুলিশ খবর পায় ওই এলাকার কারখানায় আসলে ভেজাল হলুদ গুঁড়ো তৈরি হয়৷ সেই খবরের ভিত্তিতেই শনিবার সকালে ওই কারখানায় হানা দেয় ফরাক্কা থানার বিশাল পুলিশবাহিনী৷ তদন্তকারীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে গোটা কারখানা সরেজমিনে খতিয়ে দেখেন৷ উদ্ধার করেন এক ট্রাকবোঝাই ভেজাল হলুদ গুঁড়ো৷ এছাড়াও ওই কারখানা থেকে চালের ভুসি, তুষ, লঙ্কার গুঁড়ো, তেজপাতা গুঁড়ো বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ৷ উদ্ধার করা হয় প্রচুর পরিমাণ বাসন্তী রং৷ আর এই রং উদ্ধারের পরই পুলিশ নিশ্চিত হয় গোপন সূত্রে পাওয়া খবর মিথ্যা নয়৷ গ্রেপ্তার করা হয় কারখানার মালিক মৃত্যুঞ্জয় দাসকে৷

[সোদপুর স্টেশনে মাওবাদী পোস্টার, এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য]

পুলিশসূত্রে খবর, অভিযুক্ত মৃত্যুঞ্জয় দাস ফরাক্কার শিবনগরের বাসিন্দা৷ প্রথমে ভেজাল হলুদ তৈরির কথা অস্বীকার করে কারখানা মালিক৷ একটানা পুলিশি জেরায় ভেঙে পড়ে মৃত্যুঞ্জয়৷ তদন্তকারীকে সে জানায়, এক কুইন্ট্যাল হলুদে মাত্র ২০ কেজি হলুদ দেওয়া হত৷ বাকি চালের ভুসি, তুষ, লঙ্কা গুঁড়ো, তেজপাতা গুঁড়ো এবং বাসন্তী রং মিশিয়েই তৈরি করা হত ভেজাল হলুদ গুঁড়ো৷ প্যাকেটজাত করে ওই ভেজাল হলুদ গুঁড়ো বিক্রি করা হত গ্রামে৷ রপ্তানিও করা হত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে৷ ধৃত মৃত্যুঞ্জয় দাসের বিরুদ্ধে খাদ্যে বিষ মেশানো-সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে৷

[বিষমদ কাণ্ডের পর শান্তিপুরে পার্থ, মৃতদের পরিবারের পাশে রাজ্য]

কয়েকমাস আগে ভাগাড়ের মাংস কাণ্ডে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল গোটা রাজ্যে৷ এরপরই শিরোনামে আসে ভেজাল ছানার ঘটনা৷ একের পর এক অভিযোগের মাঝেই ভেজাল হলুদ কারখানার খোঁজ পাওয়ার ঘটনায় উদ্বিগ্ন রাজ্যবাসী৷ কী খাবেন আর কী খাবেন না, এটিই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে