৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সন্দীপ চক্রবর্তী ও রাজকুমার: আলিপুরদুয়ার কাণ্ডে নিজের পদ খোয়ালেন ২০১১ ব্যাচের আইএএস অফিসার নিখিল নির্মল। জেলাশাসকের পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দিল রাজ্য প্রশাসন। আদিবাসী উন্নয়ন পর্ষদের ম্যানেজিং ডিরেক্টর করা হল আলিপুরদুয়ারের বিতর্কিত জেলাশাসককে। ওই জেলার নতুন জেলাশাসক হলেন শুভাঞ্জন দাস। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের সচিব ছিলেন তিনি। এদিকে নিখিল নির্মলের স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে ফালাকাটার বিনোদ সরকারের বিরুদ্ধে ফের মামলা রুজু করল পুলিশ।

থানায় ঢুকে এক যুবককে মারধরের ঘটনায় খবরের শিরোনামে চলে এসেছিলেন আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক নিখিল নির্মল। ফেসবুকে তাঁর স্ত্রীর সম্পর্কে ফালাকাটার যুবক বিনোদ সরকার অশালীন মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে। তাকে গ্রেপ্তার করে ফালাকাটা থানার পুলিশ। এরপর থানায় গিয়ে বিনোদকে বেধড়ক মারধর করেন জেলাশাসক নিখিল নির্মল ও তাঁর স্ত্রী নন্দিনী কৃষ্ণন। সেই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়, শোরগোল পড়ে যায় রাজ্যে। অভিযুক্ত জেলাশাসককে দশদিনের ছুটিতে পাঠিয়েছিল নবান্ন। জেলার দায়িত্বে আনা হয় অতিরিক্ত জেলাশাসক (উন্নয়ন) চিরঞ্জীব ঘোষকে। সূত্রের খবর, আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসকের পদ থেকে নিখিল নির্মলকে সরাতে চেয়ে নির্বাচন কমিশনকে রাজ্য সরকার চিঠিও পাঠিয়েছিল। কারণ, এ রাজ্যে নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ করছেন জেলাশাসকরা। আগামী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত  কমিশনের অধীনে থাকবেন তাঁরা। শেষপর্যন্ত আলিপুরদুয়ারে নয়া জেলাশাসক নিয়োগ করল রাজ্য সরকার।

এদিকে থানায় ঢুকে যে যুবককে মারধর করা নিয়ে এত কাণ্ড, সেই বিনোদ সরকারকে অবশ্য জামিন দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার তাঁর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন নিখিল নির্মলের স্ত্রী নন্দিনী। অভিযোগ, আলিপুরদুয়ারে তাঁর এক বান্ধবীকে মারধর করেছে বিনোদ। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই ফের ওই যুবকের বিরুদ্ধে পুলিশ মামলা রুজু করেছে বলে জানা গিয়েছে।    

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং