BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বেহাল রাস্তার জেরে কিশোরের মৃত্যু, ভাঙচুর-অবরোধে রণক্ষেত্র পালিতপুর

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: November 3, 2018 4:19 pm|    Updated: November 3, 2018 4:27 pm

Freak accident kills Toddler in Burdwan

ছবি: মুকুলেসুর রহমান

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: এক কিশোরের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র পূর্ব বর্ধমানের পালিতপুর৷ বেহাল রাস্তার জেরেই এই প্রাণহানি বলে অভিযোগ স্থানীয়দের৷ জেলাপরিষদের টোলপ্লাজাতেও ভাঙচুর করে তারা৷ রাস্তা সংস্কার না হওয়া পর্যন্ত অবরোধ চলবে বলেই হুঁশিয়ারি বিক্ষোভকারীদের৷

[ভাইফোঁটার আগে পথভোলা বোনকে বাড়ি ফেরাল হাসপাতাল]

বর্ধমান-কাটোয়া রোডের পালিতপুর থেকে বর্ধমান-সিউড়ি রোডের সংযোগকারী রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিনই প্রচুর সংখ্যক লরি এবং অন্যান্য ভারী গাড়ি যাতায়াত করে৷ গত বৃহস্পতিবার ওই রাস্তা থেকে একটি গাড়ি যাতায়াতের সময় পাথর ছিটকে এসে জখম হয় এক কিশোর৷ মাথায় আঘাত পায় সে৷ ভাস্কর ঘোড়ই নামে ওই কিশোরকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়৷ শনিবার সকালে আবারও অসুস্থ হয়ে পড়ে সে৷ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মারা যায় ভাস্কর৷ কিশোরের মৃত্যুতে উত্তেজিত হয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা৷ সঙ্গে সঙ্গেই পালিতপুরে মৃতদেহ নিয়ে রাস্তা অবরোধ করতে শুরু করেন তাঁরা৷ রাস্তা লাগোয়া জেলাপরিষদের টোলপ্লাজাতেও শুরু হয় ব্যাপক ভাঙচুর৷ রাস্তা সংস্কারের আশ্বাস ছাড়া অবরোধ উঠবে বলেই হুঁশিয়ারি বিক্ষোভকারীদের৷ অবরোধ-বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে যান সাংবাদিকরা৷ ঘটনাস্থলে গিয়ে আক্রান্ত হন তাঁরাও৷ স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয় আক্রান্ত সাংবাদিকদের৷ পরে বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়৷

[পরকীয়ায় মজে যুবক-যুবতী, বিয়ে দিয়ে দিলেন গ্রামবাসীরাই]

স্থানীয়দের দাবি, বর্ধমান-কাটোয়া রোডের পালিতপুর থেকে বর্ধমান-সিউড়ি রোডের সংযোগকারী রাস্তাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ এই রাস্তার সংস্কারের দায়িত্বে রয়েছে পূর্ত দপ্তর৷ দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার পাশে পাথর ফেলে রাখা হয়েছে৷ তবে পূর্ত দপ্তরের তরফে রাস্তা সারাইয়ের কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলেই অভিযোগ৷ অথচ রাস্তা দিয়ে গাড়ি নিয়ে যেতে হলেই জেলাপরিষদের টোলপ্লাজায় টাকা দিতে হয়৷ বেহাল রাস্তার জেরে প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটছে বলেও অভিযোগ স্থানীয়দের৷ কিশোরের মৃত্যুও ঠিক এই কারণে ঘটেছে বলেই দাবি তাঁদের৷ যদিও এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের স্থানীয় সদস্য নুরুল হাসান বলেন, ‘‘এটি খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। মৃতের পরিবারের পাশে আছি।’’ আপাতত অবরোধ উঠে গিয়েছে৷ তবে তড়িঘড়ি রাস্তা সারাইয়ের উদ্যোগ নেওয়া না হলে আবারও আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্থানীয়রা৷

ছবি: মুকুলেসুর রহমান

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে