১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

খুনিদের বোকা বানাতে ‘মৃত’ সাজলেন প্রৌঢ়, ফিরলেন নতুন জীবনে

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: January 28, 2019 11:19 am|    Updated: January 28, 2019 11:19 am

Man dodges death in Nadia

বিপ্লবকুমার দত্ত, কৃষ্ণনগর:  পায়ে, পেটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় লম্বা সময় ধরে মৃত মানুষের অভিনয়। বিপদ কাটাতে এই উপস্থিত বুদ্ধিই নতুন জীবন দিল কৃষ্ণনগরের প্রৌঢ় গৌরাঙ্গ মণ্ডলকে। সাক্ষাৎ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এলেন বছর একান্নর ব্যক্তি। পুরনো শত্রুতার জেরে তাঁকে খুনের চেষ্টা বলে হাসপাতালে শুয়ে জানাচ্ছেন গৌরাঙ্গবাবু। পুলিশ দুষ্কৃতীদের খোঁজে নেমেছে।

একেই বলে প্রত্যুৎপন্নমতিত্ব। নদিয়ার নাকাশিপাড়ার আরবেতা এলাকা। শুক্রবার রাতে ইটভাঁটার পাশের ফাঁকা মাঠ দিয়ে বড়েয়া খড়ের মাঠ এলাকায় নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন গৌরাঙ্গ মণ্ডল। সেই অন্ধকারেই হাজির হয় মূর্তিমান বিপদ। ওত পেতে বসে ছিল জনা কয়েক দুষ্কৃতী। পুলিশ সূত্রে খবর, গৌরাঙ্গ মণ্ডলকে খুনের টার্গেট ছিল তাদের। গৌরাঙ্গ মাঠের রাস্তা ধরতেই তাঁকে লক্ষ্য করে চলে গুলি। একটি লাগে তাঁর পায়ে, আরেকটি সোজা পেটে ঢুকে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় সেখানেই লুটিয়ে পড়েন গৌরাঙ্গ। এমন একটা বিপদের সময়েও মাথা ঠাণ্ডা ছিল তাঁর। যন্ত্রণায় ছটফট না করে একেবারে চুপ করে যান তিনি। শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ রেখে পড়ে থাকেন ‘মৃত’ হয়ে। কাছে এসে দুষ্কৃতীরা বুঝে নেয়, মারা গিয়েছেন গৌরাঙ্গ মণ্ডল। নিশ্চিত হয়ে তারা এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয়। ওই পায়ে, পেটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বেশ খানিকক্ষণ পড়ে থেকে কোনওক্রমে উঠে যান গৌরাঙ্গ। টলতে টলতে মাঠ পেরিয়ে রাস্তায় ধারে পৌঁছন। তাঁকে ওই অবস্থায় দেখে আশেপাশের লোকজন ছুটে গিয়ে তড়িঘড়ি বেথুয়াডহরী গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর স্থানান্তরিত করা হয় কৃষ্ণনগরের শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে। শুরু হয় শরীর থেকে গুলি বের করার জন্য অস্ত্রোপচার। টানা দু দিন পর আতঙ্ক কাটিয়ে কথা বলতে পেরেছেন বছর একান্নর প্রৌঢ়।

                            ভোট ময়দানে ‘মর্দ’ চাই, মেয়রকে আশালীন ভাষায় আক্রমণ বাবুল সুপ্রিয়র

শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে শুয়ে গৌরাঙ্গ মণ্ডল জানান, ”প্রথমে ওরা আমায় জোর করে রাস্তার পাশে একটি মাঠে নিয়ে যায়। অশ্রাব্য গালাগালি করে।  বলে, ‘এবার একে মেরে দে।’  ওদের  মধ্যে একজন বন্দুক দিয়ে আমার শরীর লক্ষ্য করে গুলি চালায়। গুলি লাগে আমার পেটে ও পায়ে। দুষ্কৃতিকারীদের  গুলিতে রক্তাক্ত অবস্থায় আমি মাটিতে পড়ে  যাই। অসহ্য যন্ত্রনা হচ্ছিল। দাঁত চেপে সেই যন্ত্রণা সহ্য করি। আসলে  বাঁচার আশায়  চিৎকার করিনি আমি। সেসময় হঠাৎ মাথায় বুদ্ধি আসে, মরার মত পড়ে  থাকলে হয়ত ওদের হাত বাঁচতে পারি। গুলি খেয়ে সেইমতো মরার ভান করে নিথর দেহের মত পড়ে  থাকি। ওরা ভাবে, আমি বোধহয় মারা গিয়েছি । তারপর ওরা আমায় মৃত ভেবে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।আমি বেঁচে যাই।’ তাঁর অনুমান, ‘আমার মনে হচ্ছে পুরনো কোনও শত্রুই আমাকে খুনের চেষ্টা করেছে।’ নাকাশিপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ছররা গুলি দিয়ে গৌরাঙ্গ মণ্ডলকে খুনের চেষ্টা করেছে দুষ্কৃতীরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে