৪ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৪৪ ধারার যুক্তি দিয়ে, বীরভূমের এসপি অফিসের সামনে থেকে বিজেপির ধরনা তুলল পুলিশ৷ শনিবার ষষ্ঠদিনে এই ধরনা তুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়ান পুলিশ কর্মীরা৷ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়েছেন বীরভূম বিজেপির সভাপতি শ্যামাপ্রসাদ মণ্ডল-সহ ৪০ জন৷

[ আরও পড়ুন: অবাক কাণ্ড, চুরি করতে গিয়ে রান্না করে খেল চোর! ]

অন্যদিকে, মৃত বিজেপি কর্মী স্বরূপ গড়াইয়ের পরিবারকে ওই ধরনা মঞ্চে যেতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থনীয় তৃণমূল নেতা করিম খানের অনুগামীদের বিরুদ্ধে৷ পরিবারের অভিযোগ, শনিবার সকালে ধরনা মঞ্চের উদ্দেশ্যে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন তাঁরা৷ কিন্তু মাঝ রাস্তায় তাঁদের পথ আটকায় করিম খানের অনুগামীরা৷ তাঁদের ফিরে যাওয়ার হুমকি দেন তাঁরা৷ নাহলে প্রাণে মেরে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়৷ মৃত স্বরূপ গড়াইয়ের পরিবার জানিয়েছেন, হুমকি পেয়ে দ্রুত শান্তিনিকেতন থানায় চলে আসেন তাঁরা৷ সেখানেই আশ্রয় নেন৷ এখনও আতঙ্কে রয়েছেন পরিবারের সকলে৷ বিজেপি কর্মীর বাবার অভিযোগ, পুলিশ তাঁদের যথাযথ নিরাপত্তা দিচ্ছে না৷ সেজন্যই তাঁ চেলের মৃত্যুর ঘটনায় মূল অভিযুক্ত করিম খান, হুমকি দিতে পারছে৷

[ আরও পড়ুন: একলাফে অনেকটা বাড়ল রেশন কার্ডে আয়ের সীমা, সস্তার চাল পাবেন বহু মানুষ ]

বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরেই উত্তপ্ত নানুর৷ বৃহস্পতিবারের পর শনিবার সকালে থেকে ফের উত্তপ্ত নানুরের মোহনপুর গ্রাম৷ এদিন সকাল থেকেই দফায় দফায় গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়েছে তৃণমূল-বিজেপি কর্মীরা৷ এক বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে শাসকদলের বিরুদ্ধে৷ পালটা এক তৃণমূল কর্মীর বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে৷ গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, এদিন সকালে কর্মস্থলে যাওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন ওই বিজেপি কর্মী৷ রাস্তায় তাকে মারধরের করেছে শাসকদলের এক পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী ও শ্বশুর৷ এরপরই ঘটনার প্রকতিবাদ শুরু করেন তাঁরা৷ স্থানীয় সূত্রে খবর, ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা গ্রাম৷ অভিযুক্তের বাড়িতে চড়াও হন বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা৷ বাঁশ, লাঠি দিয়ে মারধর করা হয় দুই অভিযুক্তকে৷ ঘটনাস্থলে ইতিমধ্যে পৌঁছে গিয়েছে বিশাল পুলিশ৷ তাঁরাই পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছেন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং