১৩ ফাল্গুন  ১৪২৬  বুধবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

রাজ্যের প্রতিটি প্রাথমিক স্কুলে বাধ্যতামূলক হচ্ছে স্পোর্টস পিরিয়ড

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: January 20, 2020 8:56 pm|    Updated: January 20, 2020 8:56 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: প্রাথমিক স্কুলস্তরে এবার স্পোর্টস পিরিয়ড বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। সেখানে কানামাছি, চু কিতকিত, লুকোচুরি, বুড়ি ছোঁয়া, চোর পুলিশের মতো খেলাধুলাকে বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। প্রাথমিক স্কুলের মিড ডে মিল খাওয়ার আগের পিরিয়ডটি স্পোর্টস পিরিয়ড হিসেবে রাখাও বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

সোমবার বর্ধমানে এক কর্মসূচিতে এসে এই কথা ঘোষণা করেন রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, “সকাল ১১টা স্কুল শুরু হবে এবং নির্ধারিত সময়েই স্কুলে ছুটি হবে। কিন্তু তার মাঝে স্পোর্টস পিরিয়ড রাখা বাধ্যতামূলক করা হবে। মূলত সেই ধরণের খেলাই করবে পড়ুয়ারা যাতে তাতে আকৃষ্ট হয়। এর মাধ্যমে ড্রপ আউট রোখা যাবে। একইসঙ্গে পড়ুয়াদের শরীর, স্বাস্থ্য ও মানসিক বিকাশ ঘটবে।” মানিকবাবু এদিন পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক বিজয় ভারতীর প্রস্তাব মেনে প্রতিটি স্কুলকেই একটি করে স্পোর্টস কিট দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন।

এদিন এই সংক্রান্ত বিষয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করেন মানিকবাবু। জেলাশাসক বিজয় ভারতী-সহ অন্যান্য আধিকারিকরা হাজির ছিলেন বৈঠকে। বৈঠক শেষে মানিকবাবু জানান, প্রতিটি প্রাথমিক স্কুলেই সাধারণত সকাল ১১টা ক্লাস শুরু হয়। ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চারটি পিরিয়ড হবে। তার পর দুপুর ১টা থেকে ১টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত বাধ্যমূলক হবে স্পোর্টস ক্লাস। এরপর ১টা ৪০ মিনিট থেকে হবে মিড ডে মিল খাওয়ানো। মানিকবাবুর কথায়, খেলাধুলা করলে পড়ুয়াদের খিদে বাড়বে, হজমও ভাল হবে। এমনটাই তাঁদের জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তিনি জানান, কানামাছি, বুড়ি ছোঁয়া, বুড়ি বসন্ত, লুকোচুরি, সাতচোর, দড়ি টানাটানি, রুমাল চুরি, বিস্কুট দৌড়, মোরগ লড়াই, চোর পুলিশ, এক্কাদোক্কা, ড্রিল, কুচকায়াজ, দারিয়াবান্দা, টিপ্পা, সাতখোলাং, চু কিতকিতের মতো খেলাধুলা করাতে হবে স্কুলগুলিকে।

প্রতিটি স্কুলের খেলার মাঠের ব্যবস্থা করা, মাঠকে সমান করা-সহ অন্যান্য কাজ বিডিও বা সংশ্লিষ্ট এলাকার পঞ্চায়েতের মাধ্যমে করার জন্য বৈঠকে জানানো হয়েছে। প্রশাসন সবরকম সহযোগিতা করবে বলে জানানো হয়েছে। জেলাস্তরের বৈঠকের পর আগামী ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি ব্লক থেকে স্কুলস্তর পর্যন্ত বৈঠক করে স্পোর্টস পিরিয়ড চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এদিন। স্কুলস্তরে সকল অভিভাবক ও সেখানকার গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান, সদস্য ও পঞ্চায়েত সমিতির ক্রীড়া স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষদের নিয়ে বৈঠক করার জন্য বলা হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে রাজ্যের সব প্রাথমিক স্কুলেই স্পোর্টস পিরিয়ড চালু হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন মানিকবাবু।

An Images
An Images
An Images An Images