BREAKING NEWS

৮ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র বীরভূমের মল্লারপুর

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: November 23, 2018 1:14 pm|    Updated: November 23, 2018 1:14 pm

TMC-BJP clash in Birbhum

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের উত্তপ্ত বীরভূম৷ তৃণমূল ও বিজেপি সংঘর্ষের রণক্ষেত্র মল্লারপুর৷ ১০০ দিনের কাজ দেওয়াকে কেন্দ্র বীরভূমের মল্লারপুর এলাকার কোট গ্রামে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল-বিজেপি কর্মী সমর্থকরা৷ অভিযোগ, এদিনের এই সংঘর্ষের মধ্যে এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজি শুরু হয়৷ চলে গুলি৷ হাতে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে চড়াও হয় বলে অভিযোগ৷ সংঘর্ষে জখম হন উভয় পক্ষের চারজন কর্মী৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে যায় মল্লারপুর থানার পুলিশ৷ মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী৷

[বাঁদরের নামে থানায় দায়ের এফআইআর! চক্ষু ছানাবড়া পুলিশের]

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকালে স্থানীয় পঞ্চায়েতের তরফে ১০০ দিনের কাজ বণ্টন করা হচ্ছিল৷ কাজ বণ্টন করার ক্ষেত্রে তৃণমূল প্রভাব খাটাতে শুরু করে বলে অভিযোগ তোলে বিজেপি৷ গোটা ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয় বিজেপির তরফে৷ শুরু হয় বচসা৷ তৃণমূল-বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মধ্যে চলতে থাকা বিবাদ পৌঁছে যায় হাতাহাতির পর্যায়ে৷ বাঁশ-লাঠি ও অস্ত্র উঁচিয়ে একে অপরের উপর হামলা চালায়৷ চলতে থাকে গুলি-বোমা৷ সংঘর্ষে জখম হন চারজন রাজনৈতিক কর্মী৷ পরে তাঁদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ এলাকায় গুলি-বোমা ফাটানোর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে মল্লারপুর থানার পুলিশের তরফে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়৷ শুরু হয়েছে পুলিশি টহল৷

[সৌদি আরবে মৃত্যু, ১৩ দিন পর শ্রমিকের দেহ ফিরল নদিয়ার বাড়িতে]

গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনা খুব একটা নতুন নয় বীরভূমে৷ পঞ্চায়েত নির্বাচন পরবর্তী সময়ে একের পর এক গোষ্ঠী সংঘর্ষ ঘটেছে জেলায়৷ কখনও এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে লড়াই, কখনও পঞ্চায়েতে ১০০ দিনের কাজ বিলি নিয়ে বিবাদকে কেন্দ্র করে৷ এদিনও ঠিক একই ভাবে মল্লারপুর এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷ সাতসকালে গুলি-বোমার শব্দে আঁতকে ওঠেন মল্লারপুর এলাকার বাসিন্দারা৷ এলাকায় পুলিশ মোতায়েন থাকলেও নতুন করে অশান্তির আশঙ্কায় ঘুম উড়েছে বাসিন্দাদের৷ এলাকায় লাগাতার অশান্তি-গন্ডগোলের ঘটনা ঘটলেও কেন পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে পারল না, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন স্থানীয়রা৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে