BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শুক্রবার ২৭ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

প্রতিবাদ করে কাজ হারিয়েছিলেন, #MeToo নিয়ে মুখ খুললেন অদিতি

Published by: Bishakha Pal |    Posted: December 22, 2018 7:18 pm|    Updated: December 22, 2018 7:18 pm

Aditi Rao Hydari shares her MeToo story

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার #MeToo-র সমর্থনে মুখ খুললেন অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি। সম্প্রতি একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন খুব মারাত্মক কোনও অভিজ্ঞতার সাক্ষী তাঁকে হতে হয়নি। কিন্তু একেবারেই যে তাঁকে এসবের মুখোমুখি হতে হয়নি, তা নয়।

অদিতি বলেছেন, তাঁর সঙ্গে এমন ঘটনা ঘটেছিল কেরিয়ারের শুরুর দিকে। তিনি রক্ষণশীল পরিবার থেকে এসেছিলেন। ফলে তাঁর বেড়ে ওঠা ছিল অন্যরকম। তিনি জানতেন না, ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে যে গুজবগুলি তিনি শুনতে পান, সেগুলি সত্যি হতে পারে। সেটাই হয়েছিল তাঁর সঙ্গে। তবে ওই একবারই। তাঁর কাছে সরাসরি একটি প্রস্তাব করা হয়েছিল। যে প্রস্তাবটি করা হয়েছিল, তাতে সাড়া না দিলে তাঁকে প্রজেক্ট থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু তাতে অদিতি নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেননি। ফলে সেই প্রজেক্টটি হাতছাড়া হয় অদিতির। প্রায় আট বছর তিনি কাজ পাননি। এরপরও কাজ জোগাড় করতে কসরত করতে হয়েছিল তাঁকে।

সম্পর্কের টানাপোড়েনের গল্প নিয়ে সামনে এল ‘শাহজাহান রিজেন্সি’-র ট্রেলার ]

অদিতি জনিয়েছেন, নিজে যদি ভিতর থেকে তৈরি থাকা যায়, তবেই এসব নিয়ে মুখ খোলা উচিত। তবে মুখ কিন্তু অবশ্যই খোলা দরকার। নাহলে সবাই ধরেই নেবে মৌনতা সম্মতির লক্ষ্ণণ। তখন ব্যবহার হবে আরও মারাত্মক, আরও খারাপ। বলেছেন অভিনেত্রী।

কাস্টিং কাউচ নিয়ে এর আগেও মুখ খুলেছিলেন অদিতি রাও হায়দারি। সেবারও তিনি বলেছিলেন, প্রতিবাদ করার যখন তাঁকে কাজ হারাতে হয়েছিল, তিনি খুব কান্নাকাটি করেছিলেন। কিন্তু অনুশোচনা কখনও হয়নি তাঁর। কারণ তিনি জানতেন, তিনি ভুল করেননি কিছু। তবে তাঁর এই ভেবে দুঃখ হত যে, এই ইন্ডাস্ট্রিতে মহিলাদের সঙ্গে এমন ব্যবহার করা হয়। কেউ তাঁর সঙ্গে এমন ব্যবহার করতে পারে, এটাই মেনে নিতে পারেননি অদিতি। পরে অবশ্য আস্তে আস্তে এসব বুঝতে পেরেছিলেন তিনি।

[ জঙ্গলে কেমন হল জোজোর অ্যাডভেঞ্চার? ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে