২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

‘বিরিয়ানি খাইয়ে আন্দোলন চলে না’, শাহিনবাগ নিয়ে কড়া জবাব অভিনেত্রী রত্না পাঠকের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 15, 2020 8:47 pm|    Updated: February 15, 2020 8:47 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শাহিনবাগের CAA বিরোধী আন্দোলন নিয়ে হাজারও কটাক্ষের জবাব দিতে এবার মুখ খুললেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী, সমাজকর্মী রত্না শাহ পাঠক। ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের এক আলোচনা সভায় গিয়ে ‘বিরিয়ানি’ কটাক্ষের উত্তর দিতে দিয়ে বললেন, “বিরিয়ানি কিংবা ৫০০ টাকার বিনিময়ে দু’মাস ধরে বিশ্বাস আঁকড়ে আন্দোলন করা যায় না। তাঁরা নিজেদের বিশ্বাস থেকে এই আন্দোলনে আছেন।”

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (NRC) প্রতিবাদে সেই ডিসেম্বর থেকে খোলা আকাশের নিচে তাঁবু খাটিয়ে অবস্থান বিক্ষোভে নেমেছেন শাহিনবাগের মহিলারা। ডিসেম্বরে দিল্লির কনকনে ঠান্ডা উপেক্ষা করেই চলেছে প্রতিবাদ। নাগরিকত্ব হারানোর আশঙ্কা সন্তান কোলে অনেকে ছুটে গিয়েছেন প্রতিবাদের মঞ্চে। যত দিন কেটেছে, বৃহৎ হয়েছে প্রতিবাদের মঞ্চ, বেড়েছে গুরুত্ব। ধীরে ধীরে নিজের আলাদা পরিচয় তৈরি করেছে শাহিনবাগ চত্বর। এই আন্দোলনে যেমন বহু মানুষ সমর্থনের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, একইভাবে আন্দোলনে ব্যঙ্গ-বিদ্রূপে ভরিয়েও দিয়েছেন অনেকে। বিশিষ্ট জনেরা তার জবাবও দিয়েছেন। এবার শাহিনবাগ প্রতিবাদীদের পাশে দাঁড়িয়ে সেই তালিকায় নাম লেখালেন রত্না পাঠক।

[আরও পড়ুন: অমিত শাহের ডাকে সাড়া, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন শাহিনবাগের আন্দোলনকারীরা]

১৪ তারিখ, ভ্যালেন্টাইন্স ডে উপলক্ষে জেএনইউ-তে ‘ইন্ডিয়া, মাই ভ্যালেন্টাইন’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী রত্না শাহ পাঠক। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বললেন, “শাহিনবাগে যে মহিলারা অংশ নিতে আসছেন, তাঁরা একটা বিশ্বাস থেকে আসছেন। যা বিশ্বাস করেন, সেটাই করছেন। নিজেদের এবং সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে তাঁরা চিন্তিত। সেই চিন্তা থেকে বাড়ির বাইরে পা রাখছেন তাঁরা। আমি চাই, মানুষ তাঁদের কথা শুনুন। আমার মনে হয় না যে এই বিশ্বাস ৫০০ টাকা কিংবা বিরিয়ানির প্লেট দিয়ে কেনা যায়।” গণতন্ত্র মজবুত করার লক্ষ্যে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে তিনি সাহিত্যিক ইসমত চুগতাইয়ের ‘হিন্দুস্তান ছোড় দো’ নামের ছোটগল্প সংকলন থেকে কয়েকটি পাঠ করে শোনান।

[আরও পড়ুন: ‘বাবা-মায়ের জন্মস্থান জানি না, ডিটেনশন ক্যাম্পে যাব’, CAA ইস্যুতে মন্তব্য গেহলটের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement