২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মিঠুন চক্রবর্তী কি এবার বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? মহারাষ্ট্রের নাগপুরে অবস্থিত আরএসএসের সদর দপ্তরে তাঁকে দেখা যাওয়ার পরেই বাংলার রাজনীতিতে শুরু হয়েছে জল্পনা। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সদর দপ্তরে আচমকা হাজির হয়ে যান বিখ্যাত এই বলিউড অভিনেতা। তারপর সংঘের প্রতিষ্ঠাতা কেশব বলিরাম হেডগেওয়ারের মূর্তিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তিনি। আরএসএসের সদর দপ্তরে সেসময় উপস্থিত থাকা কয়েকজন কার্যকর্তার সঙ্গে কিছুক্ষণ কথাও বলেন। মিঠুনকে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি তাঁর হাতে সংঘের তরফে একটি ফোটো ফ্রেমও তুলে দেন আরএসএসের কার্যকর্তারা। পরে সেখানে থেকে ফিরে যান মিঠুন।

[আরও পড়ুন: ‘মুখে গান্ধী, মনে গডসে’, বিজেপি সরকারকে কটাক্ষ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির]

 আরএসএস দপ্তরে তাঁর এই ঝটিকা সফরের ছবি দেখে জল্পনা শুরু হয় বাংলার রাজনৈতিক মহলে। মিঠুন বা সংঘের তরফে এই বিষয়ে কিছু না জানানোর ফলে তা আরও বাড়ে। তৃণমূলের প্রাক্তন রাজ্যসভা সাংসদ আচমকা কেন আরএসএসের আতুঁড়ঘরে যেতে গেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। আসলে অনেকদিন ধরে প্রকাশ্যে দেখা যাচ্ছিল না বাংলার ‘মহাগুরু’কে। শরীর অসুস্থ ছিল বলে শোনা যাচ্ছিল। আজও মুখে মাস্ক থাকতে দেখা যায় তাঁর। কিন্তু, এই অবস্থায় কী এমন হল যার জেরে তিনি আরএসএসের সদর দপ্তরে গেলেন তাই বুঝে উঠতে পারছেন না কেউ।

[আরও পড়ুন: পুজোর শুরুতেই মন মাতালো ‘বিসর্জন’-এর সুর, নয়া চমক দেবের]

সারদাকাণ্ডে মিঠুন চক্রবর্তীই ছিলেন একমাত্র অভিযুক্ত, যিনি ইডির দপ্তরে গিয়ে সারদার টাকা ফেরত দিয়েছিলেন। আর তারপর থেকেই কার্যত গুটিয়ে নিয়েছিলেন নিজেকে৷ রাজনীতি থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়ে রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকেও ইস্তফা দেন। অসুস্থতার কারণেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন। তবে আজ ঠিক কী কারণে তিনি আরএসএস দপ্তরে গেলেন তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং