×

৬ ফাল্গুন  ১৪২৫  মঙ্গলবার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

মজার ছলে একটি সম্পর্ক। আর তারপরেই অন্যদিকে মোড়। এক পুলকার ড্রাইভারের প্রেম কাহিনি নিয়ে নতুন ছবি। লিখছেন সোমনাথ লাহা

শুধুমাত্র একটা মিস কল। অার সেই মিস কলের সুবাদেই চুটিয়ে প্রেম করছেন সোহম ও ঋত্বিকা। এমনকী বিয়ে করে সংসারও করছেন তাঁরা। এই পর্যন্ত শুনে অনেকেই হয়তো চমকে উঠে অন্যরকম কিছু ভাবতে শুরু করেছেন। তাদের উদ্দেশ্যে জানাই এটা মোটেই বাস্তব ঘটনা নয়। এই সবই ঘটতে চলেছে সিনে আঙিনায়, তথা রিল লাইফে।

ভারতলক্ষ্মী স্টুডিওতে জোরকদমে শুটিং চলছে রবি কিনাগী পরিচালিত, সোহম-ঋত্বিকা অভিনীত ছবি ‘মিস কল’-র। নিশপাল সিং নিবেদিত এই ছবিটি প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছে সুরিন্দর ফিল্মস। একটা মিস কলের হাত ধরে মজার ছলে তৈরি হওয়া সম্পর্ক থেকে প্রেম। সেই প্রেম থেকে বিয়ে। আর তারপরেই একটা সিরিয়াস দিকে মোড় নেওয়া সম্পর্ক। এককথায় বলাই যায় যে এবারে সেলুলয়েডে অন্যরকমের প্রেমকাহিনির বুনন ঘটিয়েছেন পরিচালক রবি কিনাগী, সম্প্রতি ভারতলক্ষ্মী স্টুডিওতে ছবির শুটিং ফ্লোরে পৌঁছে দেখা গেল যে পুলকার ড্রাইভার কৃষ্ণরূপী সোহমের বিবাহ পরবর্তী নাজেহাল অবস্থার চিত্র। 
Shooting started for 'Miss Call'

[পর্দায় এবার একসঙ্গে দুই ব্যোমকেশ, ক্যামেরার পিছনে মৈনাক]

নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে কৃষ্ণ বাচ্চাদের স্কুলের পুলকার চালক। তার বাবা দিনরাত মদ্যপান করে পড়ে থাকে। কোনও কাজকর্ম করে না। ফলে পরিবারের যাবতীয় দায়িত্বই কৃষ্ণর একার কাঁধে। এদিকে মিস কলের হাত ধরে কৃষ্ণর জীবনে এসেছে কলেজ পড়ুয়া, সাদামাটা, সরল মেয়ে লীলা(ঋত্বিকা)। সবমিলিয়ে বাবা, মা, বোনদের পর এবার স্ত্রী লীলার দায়িত্ব কৃষ্ণর কাঁধে পড়ায় সে অতিরিক্ত আয়ের পথ খোঁজার জন্য দিন-রাতের পরিশ্রমের কাজে লেগে পড়ে। একস্ট্রা টিপ করে দু’পয়সা বাড়তি রোজগার করতে চায় সে। এবার কী হবে কৃষ্ণ লীলার সংসারের ভবিষ্যৎ? সেটা আর খোলসা করতে চাইলেন না পরিচালক।

ছবিতে সোহম চক্রবর্তী ও ঋত্বিকা সেন ছাড়াও অন্যান্য চরিত্রে রয়েছেন সুপ্রিয় দত্ত, স্বাগতা বসু, রেশমি সেন, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, প্রদীপ ধর, শুচিস্মিতা ও অন্যান্য শিল্পীরা। সংগীত পরিচালনায় স্যাভি। সংলাপ রচয়িতা এন.কে সলিল, সিনেমাটোগ্রাফার মুরলী ওয়াই কৃষ্ণা। সম্পাদনায় মহম্মদ কালাম, কলকাতা ও তার অাশেপাশের অঞ্চল জুড়েই চলছে এই ছবির শুটিং। ছবির শুটিংয়ের ফাঁকে ছবি নিয়ে নিজেদের অভিমত ব্যক্ত করলেন পরিচালক-সহ ছবির দুই প্রধান অভিনেতা-অভিনেত্রী। পরিচালক রবি কিনাগীর মতে “এটা আর পাঁচটা প্রেমের গল্পের থেকে আলাদা। অন্য ধরনের প্রেমকাহিনির ছোঁয়ার মধ্যে দেখতে পাবেন দর্শকরা। একটা মিস কল থেকে কিভাবে সম্পর্কের সূত্রপাত ঘটছে এবং ঋত্বিকার চরিত্র লীলা সেই মিস কলটি করছেন কৃষ্ণ(সোহম)-কে। তারপরেই এই মিস কলের হাত ধরেই দু’জনের বন্ধুত্ব আর তারপরে বিয়ে। কিন্তু বিয়ের পর ওদের দু’জনের জীবনে কী ধরনের সমস্যা তৈরি হচ্ছে আর তার থেকে ওরা আদৌ বেরিয়ে আসতে পারে কিনা সেটা জানতে হলে ছবিটা দেখতে হবে।”

[বাল্যবিধবার লড়াই এবার পর্দায়, আসছে সমরেশ মজুমদারের ‘সাতকাহন’]

সোহমের কথায় “রবিজি (পরিচালক রবি কিনাগী)-র সঙ্গে এর আগে যে কটা ছবি করেছি সবকটাই কমেডি ছবি ছিল। এই প্রথমবার ওঁর সঙ্গে এরকম একটা পুরোদস্তুর ইমোশনাল ফ্যামিলি ড্রামায় কাজ করে বেশ ভাল লাগছে। আমার খুব পছন্দের এই ছবির গল্পটা। চরিত্রটাও বেশ ভাল। নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে। পুলকার চালক। একটা মিস কলের হাত ধরে তার জীবনে প্রেম আসে। মজা দিয়ে শুরু হওয়া একটা সম্পর্ক শেষ পর্যন্ত সিরিয়াস দিকে মোড় নেয়।”  তবে বারবার নিম্ন মধ্যবিত্তের চরিত্রে তাঁকে নির্বাচন প্রসঙ্গে সোহমের অভিমত “আমার মনে হয় আমার সঙ্গে এই ধরনের চরিত্র খুব সহজে মিশে যায় বলেই হয়তো পরিচালকরা এ ধরনের চরিত্রে আমাকেই নির্বাচন করেন। তবে এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতেও আমার বেশ ভাল লাগে। এইরকম চরিত্রের হাত ধরে খুব সহজেই দর্শকদের মনের মধ্যেও ঢুকে যাওয়া যায়।” ঋত্বিকার মন্তব্য, “আমি রবিজি(পরিচালক)-র সঙ্গে অনেক ছবিতে কাজ করেছি। হিরোইন হিসাবে ‘জিও পাগলা’-তে কাজ করার পর এই প্রথমবার সিঙ্গল হিরোইন হিসাবে রবিজির ছবিতে কাজ করছি। ওঁর ছবি আমার খুব প্রিয়। রবিজির প্রতিটি ছবির একটা আলাদা ফ্লেভার রয়েছে। এই ছবিতে আমি কলেজ পড়ুয়া, সরল, সাদামাটা চুলবুলি লীলার চরিত্রে অভিনয় করছি। মিস কলের হাত ধরে কৃষ্ণ-লীলার বন্ধুত্ব, প্রেম আর তারপরে বিয়ে। কৃষ্ণলীলার কেমিস্ট্রির আদৌ কী পরিণতি হয় সেটা জানতে হলে ছবিটা দেখতে হবে।” সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী বছরের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাস নাগাদ প্রেক্ষাগৃহে পর্দা উন্মোচিত হবে ‘মিস কল’।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং