৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চুরি গেল মেরিলিনের মূর্তি। তাও আবার খাস হলিউড প্রাঙ্গনে একটি বুলেভার্ডে গড়া কাঠামো থেকে। অভিনেত্রী মেরিলিন মনরোর নাম শুনলেই মনে পড়ে এক লাস্যময়ী নারীর জামা ওড়ার দৃশ্য। যা হলিউড প্রান্তর থেকে বেরিয়ে সমূহ বিশ্বের আট থেকে আশি সকলের কাছেই রীতিমতো পরিচিত। আর মনরোর চুরি যাওয়া মূর্তিটিও তারই আদলে গড়া। তবে ‘ফরেভার মেরিলিন’ মূর্তিটির মতো অত বড়ও নয় এই মূর্তি। মাঝারি আকারের। ব্রোঞ্জ রঙা এই মূর্তি রাখা ছিল হলিউডের বিখ্যাত নায়িকাদের প্রতি উৎসর্গ করা এক স্মারক কাঠামো, যা কি না গাজেবো নামেও পরিচিত, তার মাথায়। ইস্পাতের তৈরি ওই স্মারক মণ্ডপ বা গাজেবো হলিউডের বুলেভার্ড পর্যটনের বড় আকর্ষণ। এখানে বেড়াতে এলেই এই গাজেবোর সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তোলেন পর্যটকরা। সোমবার ভোর রাতে সেখান থেকেই চুরি যায় মূর্তিটি।

[আরও পড়ুন:রবীন্দ্রনাথের উক্তি ‘চুরি’, নেটদুনিয়ায় ফের হাসির খোরাক ইমরান খান]

মেরিলিনের মূর্তিটি যে নিজের জায়গায় নেই তা ওইদিন ভোর তিনটে নাগাদ লক্ষ্য করেন বুলেভার্ডের রক্ষণাবেক্ষণ কর্মীরা। সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশকে জানানো হয় বিষয়টি। পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, ঘটনার আগের দিনও এ ব্যাপারে তাদের কাছে একটি ফোন এসেছিল। রবিবার সন্ধ্যায়, কোনও পর্যটক তাঁদের ফোন করে জানিয়েছিলেন, গাজেবোটির উপরে তাঁরা দু’জন কালো পোশাক পরা ব্যক্তিকে উঠতে দেখেছেন। সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ পৌঁছে যায় বুলেভার্ডে। কিন্তু, গাজেবোর উপরে তখন কেউ ছিল না। মেরিলিনের মূর্তিটিও ছিল যথাস্থানে। তবে এর কয়েক ঘণ্টা পরেই চুরি যায় সেটি। পুলিশ জানিয়েছে, কারা এই চুরি করেছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে ইতিমধ্যেই ঘটনাটির তদন্ত শুরু করে দিয়েছেন গোয়েন্দারা।

[আরও পড়ুন:নির্বাচনী প্রচারে মাত্রাতিরিক্ত খরচ, সাংসদ পদ হারাতে পারেন সানি দেওল!]

উল্লেখ্য, মেরিলিনের ওই মূর্তিটি গত ২৫ বছর ধরে রয়েছে স্মারক মণ্ডপের শীর্ষে। ১৯৯৩ সালে গাজেবোটি তৈরি করার পর ৯৪ সালে তা উৎসর্গ করা হয় হলিউডের বিখ্যাত নায়িকাদের উদ্দেশে। তাই স্মারক মণ্ডপটির চারটি স্তম্ভ তৈরি হয় হলিউডের চার নায়িকা- দোলোরেস দেল রিও, ডরোথি ড্যানরিজ, মে ওয়েস্ট এবং অ্যানা মে’র আদলে। আর মণ্ডপের শীর্ষে রাখা হয় মেরিলিনের মূর্তিটিকে। এর বিশেষত্ব, যে বিশালাকৃতি জামা ওড়া মেরিলিনের মূর্তি ‘ফরেভার মেরিলিন’ হলিউড প্রেমীদের মধ্যে বিশেষ জনপ্রিয়, তার বহু আগেই তৈরি হয়েছিল এই মূর্তি। যা হলিউড ওয়াক অফ ফেমের মূল আকর্ষণ। পর্যটকরা এটি দেখতে পান হলিউড বুলেভার্ড আর লা ব্রি স্ট্রিটের সংযোগস্থলে। তবে কড়া নিরাপত্তা সত্ত্বেও কারা কীভাবে ওই মূর্তি চুরি করল, তা নিয়ে এখনও ধন্ধে পুলিশ। প্রসঙ্গত, যে ছবিতে মেরিলিনের ওই জামা ওড়ার বিখ্যাত দৃশ্যটি দেখা গিয়েছিল, তা ১৯৫৫ সালের হিট হলিউড ছবি ‘দ্য সেভেন ইয়ার ইচ’। তবে এই ছবিটি যত না জনপ্রিয় হয়েছিল, তার চেয়েও অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পায় মেরিলিনের জামা ওড়ার দৃশ্য। সেই জনপ্রিয়তার মাত্রা এতটাই ছিল যে অভিনেত্রীকে বহু অনুষ্ঠানে একাধিকবার ভক্তদের অনুরোধে সেই দৃশ্যের পুনরাভিনয় করে দেখাতে হয়েছিল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং