৩১ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৃহস্পতিবারই টলিউডের একদল তারকা দিল্লিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিয়েছেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে। এদিন টলিপাড়ার ছোটপর্দা এবং বড়পর্দার জনপ্রিয় তারকাদের মধ্যে ছিলেন অভিনেত্রী পার্নো মিত্র, রূপাঞ্জনা মিত্র, কাঞ্চনা মৈত্র, মৌমিতা গুপ্ত, রূপা ভট্টাচার্য, দেবরঞ্জন নাগ, লামা (অরিন্দম হালদার), বিশ্বজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়, ঋষি কৌশিক, সৌরভ চক্রবর্তী, অনিন্দ্য পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ মোট ১২ জন তারকা। রাজ্য রাজনীতিতে হাওয়া বদলের সঙ্গে স্টুডিওপাড়ার অন্দরেও চলছে এখন ভোলবদলের পালা। আর এই দলবদলের রাজনীতিকেই কটাক্ষ করলেন অভিনেত্রী অপর্ণা সেন। বললেন ‘সুবিধাভোগীর রাজনীতি’।

[আরও পড়ুন:  বিয়ের পর প্রথম ছবির কাজ সাংসদ নুসরত জাহানের, আগস্টে শুরু শুটিং]

ঠিক কী বললেন বুদ্ধিজীবী তথা পরিচালক অপর্ণা সেন? তৃণমূলকে আখ্যা দিলেন ‘ডুবন্ত জাহাজ’। বললেন, “ডুবন্ত জাহাজ তৃণমূলকে ছেড়ে ক্ষমতার সুবিধে নিতেই গেরুয়া শিবিরের দিকে ঝুঁকছে টলিউডের একটা অংশ। এটা তো নীতিবোধের অভাব। যেদিকেই ক্ষমতার আভাস পেয়েছেন, সেদিকেই ছুটেছেন তাঁরা। যাঁরা গিয়েছেন তাঁদের নিয়ে আলাদা করে বিশেষভাবে কিছু বলার নেই আমার। তৃণমূল ক্রমশ ক্ষমতা হারাচ্ছে। তা ঠাহর করেই ওঁরা বিজেপির দিকে ঝাঁপিয়েছেন।” পাশপাশি বাম এবং কংগ্রেসের হয়েও সওয়াল করতে শোনা গিয়েছে অপর্ণা সেনকে। তাঁর মতে, শক্তিশালী বিরোধীদের জন্যই বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের পুনরায় শক্তিশালী হওয়া দরকার।

[আরও পড়ুন: এবার ওয়েব সিরিজে ইমরান হাশমি, আসছে ঋভু দাশগুপ্তের ‘বার্ড অফ ব্লাড’]

উল্লেখ্য, ১৮ জুলাই সকালেই টলিউডের একঝাঁক তারকা রাজধানীর উদ্দেশে উড়ে গিয়েছিলেন বিজেপিতে যোগ দিতে। বিকেল গড়াতেই দিল্লিতে ভারতীয় জনতা পার্টির সদর দপ্তরে যোগ দেন মোট ১২ জন টলিতারকা। উপস্থিত ছিলেন, রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং মুকুল রায়। টলিউডের অন্দরে ঘাসফুল বনাম পদ্মফুলের লড়াই যে দিনে দিনে বেশ প্রকট আকার ধারণ করছে, তা বেশ বোঝাই যাচ্ছিল। আর এবার রাজ্যের বিনোদন ইন্ডাস্ট্রিতে গেরুয়া শিবির যে বড়সড় থাবা বসাল, তা হলফ করে বলাই যায়। রাজ্যের ১৮টি লোকসভা আসনে জিততে না জিতেই টলিউডে ইতিমধ্যেই গঠন হয়ে গিয়েছে বিজেপি ঘনিষ্ঠ দু-দুটি সংগঠন। আর সেই হাওয়াতে গা ভাসিয়ে ইতিমধ্যেই রং বদল করা শুরু হয়েছে স্টুডিও পাড়ায়। লক্ষ্য, ২০২১ সালের বিধানসভা ভোট। উল্লেখ্য, রাজ্যের বিনোদন ইন্ডাস্ট্রিতে বড়সড় পরিবর্তনের দুন্দুভি এবার বেজে গেল।    

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং