BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘পদ্মাবত’ নিয়ে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশের দাবি খারিজ সুপ্রিম কোর্টের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 23, 2018 6:42 am|    Updated: January 23, 2018 8:40 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুক্তির বাকি আর মাত্র দু’দিন। কোথাও আগুনে জ্বলছে প্রেক্ষাগৃহ, তো কোথাও বা পোড়ানো হচ্ছে পরিচালকের পাঠানো আমন্ত্রণ পত্র। এভাবেই চলছে কর্নি সেনাদের তাণ্ডব। প্রতিদিনই বিতর্ক বেড়েই চলেছে ‘পদ্মাবত’কে ঘিরে। শীর্ষ আদালতের নির্দেশে দেশের সব রাজ্যেই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা, কিন্ত সেই রায়কেই সোমবার চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থান সরকার।

রাজস্থান সরকারের দাবি এই ছবিতে রানি পদ্মিনীর জীবনকে বিকৃত করা হয়েছে। রাজস্থানের চিতোরগড়ের জহর স্মৃতি সংস্থান জানিয়েছে, তাঁরা রানি পদ্মিনীর জীবনকাহিনির চূড়ান্ত খসড়া প্রস্তুত করেছিল । এই খসড়া তাঁরা মানবসম্পদ উন্নয়ন দপ্তরে পাঠাবে বলেও জানিয়েছে। সংস্থানের দাবি, এটিতেই আসল ইতিহাস রয়েছে। কিন্ত ‘পদ্মাবত’ ছবিটি তৈরি হয়েছে কল্পকাহিনিকে ঘিরে। যা অন্যায়। শুধু তাই নয়, সম্প্রতি লেখকদের এই সংস্থা সাবধান করে দিয়েছে, কোথাও যেন রানি পদ্মিনী ছাড়া অন্য কোনও নাম উচ্চারণ না করা হয়।

অন্যদিকে, ‘পদ্মাবত’ মুক্তি পেলে ফের গণআত্মহত্যার হুমকি দিয়েছিলেন রাজপুত মহিলারা। গত রবিবার রাজস্থানের চিতোরগড়ে প্রায় ৫০০ রাজপুত মহিলা একটি ‘স্বাভিমান’ মিছিলে অংশগ্রহণ করেছিলেন। সেই বিক্ষোভ সমাবেশেই তাঁরা স্লোগান দিয়েছিলেন ‘পদ্মাবত’ মুক্তি বন্ধ করতে হবে। আর ছবি মুক্তি পেলে তাঁদের আত্মহত্যায় অনুমতি দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি এবং রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এই আবেদন জানিয়েছিলেন তাঁরা। এই মর্মে শীর্ষ আদালতের কাছে লিখিত দাবি দাখিল করেছিল মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থান সরকার।

জহর স্মৃতি সংস্থানের তরফে এদিন কান সিং সুয়াওয়া বলেছেন, পাঠ্যবইয়ে ইতিহাসের যথাযথ মূ্ল্যায়ণ না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে। বিভিন্ন সময়ে লেখক ও শিল্পীরা রানিকে ঘিরে কল্পকাহিনি নির্মাণ করেছেন। ‘পদ্মাবত’কে ঘিরে বিতর্কের উৎসও সেটি। তাঁদের দাবি, ছবিতে রাজস্থানের ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছে, এতে রাজস্থানের মানুষের ভাবনা আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। তাই ওই রাজ্য দুটিতে এই ছবিটি প্রদর্শন করতে দেওয়া হবে না।  কিন্ত এদিন সর্বোচ্চ আদালতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এ এম খানউইলকর ও বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ওই রাজ্যের পাঠানো আবেদনপত্রগুলি খতিয়ে দেখে অবশেষে তাঁদের দাবি খারিজ করে  দিয়েছেন। সর্বোচ্চ আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে কোথাও যদি ‘পদ্মাবত’ দেখানো নিয়ে কোনও ঝামেলা তবে ‘পদ্মাবত’এর টিম প্রশাসনের সব রকম সাহায্য নিতে পারবে।

এদিন ‘পদ্মাবত’এর মঙ্গল কামনায় অভিনেত্রী দীপিকা পারুকন মহারাষ্ট্রের সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে গিয়ে পুজো দিয়ে আসেন।

Deepika 02_Web

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement