১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিডিটাল ডেস্ক:  বেলা ১১টা থেকে বিকেল প্রায় ৫টা৷ টানা প্রায় ৬ঘণ্টা ধরে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট আধিকারিকদের জেরার মুখে বসে রীতিমত ধৈর্য্যের পরীক্ষা দিলেন অভিনেতা-প্রযোজন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়৷ এবং এ দফায় তিনি উতরে গেলেন বলেও মনে হল৷ রোজভ্যালি কাণ্ডে ইডি আধিকারিকদের নির্দেশমতো শুক্রবার বেলা ১১টা নাগাদ সিজিও কমপ্লেক্সে পৌঁছন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। রোজভ্যালি সংস্থার সঙ্গে তাঁর আর্থিক লেনদেন এবং চুক্তি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই টানা সাড়ে ৬ ঘণ্টা ধরে জেরা করা হয় তাঁকে।  এরপর বিকেল ৫টা নাগাদ ইডির দপ্তর থেকে বেরোন অভিনেতা।

[আরও পড়ুন:  রোজভ্যালি কাণ্ডে তলব, ইডির দপ্তরে পৌঁছলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়]

মুখে হাসি এবং একরাশ ক্লান্তির ছাপ স্পষ্ট প্রসেনজিতের অভিব্যক্তিতে। সিজিও কমপ্লেক্স থেকে বিকেল পাঁচটা নাগাদ অভিনেতাকে বেরতে দেখেই উৎসাহী এবং উৎকণ্ঠী মানুষের দল ঘিরে ধরে তাঁকে। ইডির দপ্তরে জিজ্ঞাসাবাদ প্রসঙ্গে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ভারতের নাগরিক হিসেবে আমার কিছু দায়িত্ববোধ রয়েছে। আর সেগুলি আমাকে পূরণ করতেই হবে। ওঁদের কিছু জিজ্ঞাসা করার ছিল। এবং বেশ কিছু নথি দরকার ছিল। যেগুলি ইতিমধ্যেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতেও যদি আমাকে ডাকা হয়, তাহলেও আমি আসব এবং তদন্তে সবরকম সাহায্য করব।”  তবে তিনি কি আবার ইডির দপ্তরে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ পেয়েছেন? সেই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতেই এড়িয়ে যান টলিউডের নামজাদা অভিনেতা।

দিন কয়েক আগেই আগে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে সমন পাঠানো হয়েছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের তরফে। ১৯ জুলাই অর্থাৎ শুক্রবার বেলা ১২টার মধ্যে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দিতে বলা হয়েছিল তাঁকে। তবে নির্ধারিত সময়ের আগেই ইডির দপ্তরে গিয়ে পৌঁছন অভিনেতা। খ্যাতনামা এই টলিউড অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ, রোজভ্যালির বিভিন্ন অনুষ্ঠানে একাধিকবার বিশেষ অতিথির আসনে দেখা গিয়েছে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেতাকে। পাশাপাশি, রোজভ্যালির কর্ণধার গৌতম কুণ্ডুর সঙ্গে প্রসেনজিৎ কতটা ঘনিষ্ঠ ছিলেন, সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এমনকী, ওই সংস্থার সঙ্গে কোনওরকম আর্থিক লেনদেনের সম্পর্ক ছিল কি না, কেনই বা তিনি ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতেন তিনি, সেই সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে তলব করা হয়েছিল বলে খবর।  বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার আর্থিক লেনদেনের তদন্ত করতে গিয়ে রোজভ্যালির সঙ্গে একাধিক টলিউড সেলেব্রিটির যোগাযোগের কথা জানতে পারে ইডি। সেই প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদ করতে বৃহস্পতিবার তলব করা হয় ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকেও। 

[আরও পড়ুন:  ফিরল সিম্বা, দেখা হল সেই নস্ট্যালজিয়ার সঙ্গে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং