BREAKING NEWS

১ কার্তিক  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ প্রকল্পে বিজ্ঞাপনের খরচ বরাদ্দ অর্থের অর্ধেকের বেশি!

Published by: Sayani Sen |    Posted: January 23, 2019 7:13 pm|    Updated: January 23, 2019 7:13 pm

'Beti Bachao, Beti Padhao' truth revealed

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সরকার গঠনের বছরখানেকের মাথায় শিশুকন্যাদের স্বার্থে ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ প্রকল্পের ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তবে সরকারের মেয়াদ পূর্তির শেষ সময়ে সেই প্রকল্প নিয়েই উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ কেন্দ্রীয় সরকারের লোকসভায় দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে যে, প্রকল্প বাস্তবায়নের থেকে নাকি প্রচারেই বেশি নজর ছিল মোদি সরকারের৷ আর তার জেরেই এই প্রকল্পে বরাদ্দ অর্থের ৫৬ শতাংশই প্রচারের উদ্দেশ্যে খরচ করেছেন নরেন্দ্র মোদি৷ বিরোধীদের দাবি, এর জেরেই নাকি মুখ থুবড়ে পড়েছে ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ প্রকল্প৷

[রাহুলের পর সুরেশ প্রভু, টুইটে নেতাজির মৃত্যুদিন লিখে বিতর্কে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী]

এখনও আমাদের দেশে কন্যাসন্তানরা অবহেলিত৷ এখনও তারা অনেকক্ষেত্রেই পরিবারের বোঝা হিসাবে গণ্য হয়৷ দেশে লিঙ্গ ভারসাম্য বজায় রাখতে পাশাপাশি মহিলাদের উন্নয়নের নিরিখে ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’-এর মতো গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের দায়িত্ব ছিল কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের৷ গত ৪ জানুয়ারি নারী ও শিশুকল্যাণ দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী বীরেন্দ্র কুমার লোকসভায় জানিয়েছেন, বিগত কয়েকবছরে এই প্রকল্পের জন্য কেন্দ্রের তরফে ৬৪৮ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে৷ যার মধ্যে ৫৬.২৭ শতাংশ অর্থাৎ ৩৬৪.৬৬ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে প্রকল্পের বিজ্ঞাপনে৷ এছাড়াও ২৪.৫ শতাংশ অর্থাৎ ১৫৯.১৮ কোটি টাকা বিভিন্ন রাজ্যে প্রকল্পের স্বার্থে ব্যয় করা হয়েছে৷

[বাড়িতে বিদ্যুতের বিল এল ২৩ কোটি টাকার! মাথায় হাত গৃহস্থের]

বছরভিত্তিক যে তথ্য লোকসভায় পেশ করা হয়েছে তাতে দেখা গিয়েছে, ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ২৮০ কোটি টাকা৷ যার মধ্যে প্রচার ও বিজ্ঞাপনের জন্য বরাদ্দ ছিল ১৫৫.৭১ কোটি টাকা৷ বিভিন্ন রাজ্যে প্রকল্প খাতে বরাদ্দ ছিল ৭০.৬৩ কোটি টাকা৷ বাকি ৫৩.৬৬ কোটি টাকা এখনও সরকারের হাতেই রয়েছে৷ এর আগের অর্থবর্ষ অর্থাৎ ২০১৭-২০১৮ সালে এই প্রকল্পে বরাদ্দ ছিল ২০০ কোটি টাকা৷ সেখানে প্রচারে খরচ হয়েছে ১৩৫.৭১ কোটি টাকা৷ একই পরিস্থিতি ছিল ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষেও৷ ওই বছর বরাদ্দ অর্থের ২৯.৭৯ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছিল প্রচারে৷ মাত্র ২.৯ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছিল প্রকল্পের বাস্তবায়নে৷ এই খতিয়ান সামনে আসার পরই তা নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়৷ প্রকল্প যতটা না বাস্তবায়িত হয়েছে তার চেয়ে বেশি প্রচারেই মোদি সরকারের নজর ছিল বলেই কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তাঁরা৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement