২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মিটছে বৈষম্য, দেশের সর্বত্র দুঃস্থ নির্যাতিতাদের জন্য অভিন্ন ক্ষতিপূরণ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 11, 2018 11:42 am|    Updated: May 11, 2018 11:42 am

Centre, NALSA draw relief plan for rape survivors

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যৌন নির্যাতন, অ্যাসিড হামলার শিকার হওয়া গরিব মহিলাদের জন্য বিশেষ প্রকল্প শুরু করতে চলেছে ন্যাশনাল লিগাল সার্ভিস অথরিটির (এনএএলএসএ)। যার মাধ্যমে নিপীড়নের শিকার হওয়া আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল মহিলাদের ন্যূনতম পাঁচ লক্ষ থেকে সাত লক্ষ টাকা দেওয়া হতে পারে। বৃহস্পতিবারই এই বিষয়ে সম্মতি দিয়েছে শীর্ষ আদালত। কেন্দ্রের সঙ্গে পরামর্শ করে খুব শীঘ্রই এই প্রকল্প প্রকাশ্যে আনা হবে।

[খাবারের মান যাচাইয়ে নয়া পদক্ষেপ, এবার রোবট কিনছে রেল]

ন্যাশনাল লিগাল সার্ভিস অথরিটির (এনএএলএসএ)-র পরামর্শে তৈরি হওয়া এই প্রকল্পে যুক্ত করা হচ্ছে গরিব নির্যাতিতা ও তাঁর পরিবারকে। কোনও নির্যাতিতার মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারকে দেওয়া হবে সেই অর্থ। প্রকল্পের নিয়মানুযায়ি ধর্ষণের শিকার হওয়া কোনও মহিলা পাবেন ন্যূনতম চার লক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা। যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া মহিলারা পাবেন চার লক্ষ টাকা। যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া কোনও মহিলার অঙ্গহানি ঘটলে সেক্ষেত্রে তাঁকে দেওয়া হবে দু’লক্ষ টাকা ও চিকিৎসার জন্য দেওয়া হবে আরও দু’লক্ষ টাকা। কোনও মহিলার গর্ভপাত করনো হলে তাঁকে দেওয়া হবে দু’লক্ষ টাকা। গণধর্ষণের শিকার হওয়া কোনও মহিলার মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারকে দেওয়া হবে ১০ লক্ষ টাকা। নির্যাতিতা নাবালিকা হলে সেক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ আরও ৫০ শতাংশ বাড়বে।

[উন্নাওয়ে ধর্ষণ করেছিল বিজেপি বিধায়ক, নিশ্চিত করল সিবিআই]

যৌন নির্যাতন, ধর্ষণ ও অ্যাসিড হামলার শিকার হওয়া মহিলাদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়ে এতদিন ধরে চরম বৈষম্য ছিল দেশের রাজ্যগুলির মধ্যে। কোনও নির্দিষ্ট টাকার অঙ্ক ধার্য নেই রাজ্যগুলির। ফলে দেশের বিভিন্ন রাজ্য এই নির্যাতনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকমের ক্ষতিপূরণ দিয়ে থাকে। এই প্রকল্প চালু হলে দেশের সব রাজ্যকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা হবে। ফলে দেশ জুড়ে এই ধরনের নির্যাতনের শিকার হওয়া গরিব মহিলাদের জন্য একই ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা চালু হবে। বর্তমান বৃহস্পতিবার তাদের রায়ে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারপতি মদন লোকুর ও দীপক গুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চ। মহিলাদের উপর নির্যাতনকে সমাজের সবচেয়ে নিকৃষ্টতম মানসিকতার প্রমাণ দেওয়ার সঙ্গে তুলনা করেছেন দুই বিচারপতি। তাঁরা জানিয়েছেন, সেজন্যই নির্যাতনের ক্ষেত্রে রাজ্যভিত্তিক আলাদা আলাদা ক্ষতিপূরণের পরিমাণ হতে পারে না। সমগ্র দেশে সেটা এক হওয়া প্রয়োজনীয়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে