BREAKING NEWS

১৫ মাঘ  ১৪২৯  সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

রাজস্থানের রাজনৈতিক টানাপোড়েনের মধ্যেই সক্রিয় ইডি! তলব অশোক গেহলটের ভাইকে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 29, 2020 12:51 pm|    Updated: July 29, 2020 5:26 pm

ED summons Rajasthan CM Ashok Gehlot’s brother for questioning

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানে রাজনৈতিক ডামাডোল চরম আকার নিয়েছে। শচীন পাইলট ‘বিদ্রোহ’ ঘোষণা করার পর সরকার বাঁচাতেই একপ্রকার নাজেহাল দশা মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের (Ashok Gehlot)। একদিকে দলের অন্তর্দ্বন্দ্ব, অন্যদিকে রাজ্যপালের অনড় মনোভাব। একসঙ্গে দু’দিকের চাপ সামাল দিতে হিমশিম অবস্থা বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতার। এসবের মধ্যেই আবার ‘হঠাত’ সক্রিয় হয়ে উঠেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি (Enforcement Directorate) এবং আয়কর বিভাগ। গত দু’সপ্তাহে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যবসায়ীর ঠিকানায় হানা দেওয়ার পর, এবার খোদ মুখ্যমন্ত্রীর ভাইকে তলব করল ইডি।

ইডির অভিযোগ, ২০০৯ সালে কংগ্রেস (Congress) সরকার থাকাকালীন বেআইনিভাবে ১৩০ কোটি টাকার সার বিদেশে পাচার করেছে মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের ভাই অগ্রসয়ন গেহলটের (Agrasain Gehlot) সংস্থা। দীর্ঘদিন ধরেই এই অভিযোগের তদন্ত চলছে। কিন্তু এখন অশোক গেহলটের ভাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করাটা অতি প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে। এর আগে গত ২২ জুলাই গেহলটের ভাইয়ের রাজস্থান, দিল্লি এবং কলকাতার বেশ কয়েকটি ঠিকানায় হানাও দিয়েছিল ইডি। রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে ইডির এই ‘হঠাৎ’ সক্রিয় হয়ে ওঠার পিছনে কেন্দ্রের ছক দেখছে কংগ্রেস। আর শুধু মুখ্যমন্ত্রীর ভাই কেন, গেহলট ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যবসায়ী, গেহলটের ছেলে বৈভব গেহলটের ব্যবসার অংশীদারদের ঠিকানাতেও গত ১৫ দিনে একাধিকবা হানা দিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কংগ্রেসের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে কাজে লাগিয়ে আসলে কংগ্রেস নেতাদের উপর চাপ সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে বিজেপি। সরকার ফেলার ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলেও দাবি হাত শিবিরের।

[আরও পড়ুন: ‘রাম মন্দিরের ভূমিপূজায় যাওয়া মানে ধর্মনিরপেক্ষতার শর্ত ভঙ্গ করা’, মোদিকে তোপ ওয়েইসির]

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী গেহলট এখনও বিধানসভা অধিবেশন ডাকার ব্যপারে রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্রকে রাজি করাতে পারেননি। গেহলটের তিনটি প্রস্তাব খারিজ করে দিয়েছেন তিনি। রাজ্যপালের সাফ কথা করোনা আবহে ২১ দিনের নোটিস ছাড়া বিধানসভা অধিবেশন ডাকা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। এমনকী করোনার জন্য স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানও বাতিল করে দিয়েছেন তিনি। যা আসলে মুখ্যমন্ত্রীকে বার্তা দেওয়ার চেষ্টা বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। অন্যদিকে, গেহলটের বিপদ আরও বাড়িয়েছেন মায়াবতী (Mayawati)। তাঁর দলের ৬ বিধায়কের কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার বিরুদ্ধে এবার সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছেন বিএসপি (BSP) সুপ্রিমো। এর আগে রাজস্থান হাই কোর্টেও একই দাবিতে মামলা দায়ের করেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই মামলা গ্রহণ করেনি আদালত।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে