×

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “কংগ্রেসের সভাপতি হওয়ার আগে থেকেই দলের বিভিন্ন কাজে হস্তক্ষেপ করত রাহুল গান্ধী৷ সে কারণে একপ্রকার বাধ্য হয়ে দলত্যাগ করেছি।” বর্তমান কংগ্রেস সভাপতির বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ করলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এসএম কৃষ্ণ৷ কর্ণাটকের প্রাক্তন এই মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘‘রাহুল গান্ধীর একটি মন্তব্য শোনার পর আমি দলত্যাগের মনস্থির করে ফেলি৷ আমি রাহুলকে বলতে শুনি, অশীতিপর ব্যক্তিদের নাকি তাঁর অফিসে কোনও প্রয়োজন নেই৷’’

[প্রধানমন্ত্রীর সফরের আগে মোদি বিরোধী পোস্টারে ছয়লাপ অন্ধ্রপ্রদেশ ]

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের মন্ত্রিসভায় ২০০৯ থেকে ২০১২ পর্যন্ত বিদেশ মন্ত্রকের দায়িত্ব সামলেছেন এসএম কৃষ্ণ৷ তিনি জানান, ওই সময় কার্যত দমবন্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল৷ কারণ যথেষ্ট চাপের মধ্যে কাজ করতে হত ৷ প্রাক্তন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরও অভিযোগ করেন, মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী থাকলেও, বিভিন্ন মন্ত্রকের একাধিক কাজে হস্তক্ষেপ করত রাহুল৷ বিভিন্ন মন্ত্রীদের কাজে নাক গলাতেন বর্তমান কংগ্রেস সভাপতি৷

[উত্তরপ্রদেশে বিষ মদ কাণ্ডে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা, আর্থিক সাহায্য ঘোষণা]

আসন্ন লোকসভা ভোটের আগে যে জোট নিয়ে এত স্বপ্ন দেখছে কংগ্রেস৷ সেই জোটকেও আক্রমণ করেন কংগ্রেসের প্রাক্তন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷ জানান, বারবারই জোটে সঙ্গীদের উপর কোনও রকম নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারে না কংগ্রেস৷ সেই কারণেই টুজি, কমনওয়েলথ, কয়লা কেলেঙ্কারির মতো ঘটনা ঘটতে পেরেছে৷ কারণ কংগ্রেসে বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অভাব ছিল৷ কংগ্রেসের সঙ্গে কয়েক দশকের সম্পর্ক চুকিয়ে ২০১৭-তে বিজেপিতে যোগদান করেছেন কর্ণাটকের এই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা করে তিনি জানান, দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়তে আরও পাঁচ বছর এ দেশে মোদি সরকারের প্রয়োজন রয়েছে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং