২৬ আষাঢ়  ১৪২৭  শনিবার ১১ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

টুইটার থেকে ‘বিজেপি’ বাদ দেওয়ার খবর ‘ভুয়ো’, দাবি জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 6, 2020 11:43 am|    Updated: June 6, 2020 3:39 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১১ মার্চ। কংগ্রেসের সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিন্ন করে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা গোয়ালিয়রের মহারাজ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া (Jyotiraditya Scindia)। সেই ঘটনার পর মাস তিনেকও হয়নি। এরই মধ্যে তাঁকে নিয়ে বড়সড় জল্পনা-কল্পনার একটা পর্ব চলল মধ্যপ্রদেশের রাজনীতিতে। শনিবার বেশ কয়েকটি সর্বভারতীয় ইংরেজি ও হিন্দি সংবাদমাধ্যম দাবি করে, নিজের টুইটার প্রোফাইলের ‘বায়ো’ থেকে ‘বিজেপি’ শব্দটি সরিয়ে ফেলেছেন সিন্ধিয়া। বিজেপির সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ার দরুনই তাঁর এমন পদক্ষেপ বলে জল্পনা শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে। বস্তুত, সেসময় তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টে বিজেপির উল্লেখ ছিলও না। তিনি নিজেকে শুধু ‘জনতার সেবক’ এবং ‘ক্রিকেটপ্রেমী’ হিসেবে পরিচয় দেন। সেই স্ক্রিনশট ছড়িয়ে পড়ায় জল্পনা আরও বাড়ে।

Scindhia-twitter

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ লকডাউন! ‘প্রমাণ’ হিসেবে পরিসংখ্যান দিলেন রাহুল]

কিন্তু পরে সিন্ধিয়া দাবি করেন, তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টের বায়ো নিয়ে যে খবর ছড়ানো হচ্ছে তা বিভ্রান্তিকর।  এমনিতে বিজেপিতে যোগদানের পর সেভাবে সক্রিয়তা দেখাননি সিন্ধিয়া। কংগ্রেসের (Congress) শীর্ষ নেতৃত্বকে সেভাবে তেড়েফুঁড়ে আক্রমণ করতেও শোনা যায়নি তাঁকে। যেটুকু সক্রিয়তা সোশ্যাল মিডিয়াতেই। সেই সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলেই ‘বিজেপি বিদায়’ নিয়ে জল্পনা ছড়ানোই নিঃসন্দেহে অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছিলেন গোয়ালিয়রের মহারাজ। যদিও সিন্ধিয়া নিজে এ নিয়ে জল্পনার কোনও অবকাশ রাখেননি। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, “বিজেপির সঙ্গে আমার কোনও সমস্যা তৈরি হয়নি। আর টুইটার প্রোফাইলে বদল নিয়ে যেসব জল্পনা ছড়াচ্ছে, তার কোনও ভিত্তি নেই।” পরে এ একটি টুইটও করেন। যাতে তাঁর সংক্ষেপ উক্তি,” দুঃখের বিষয় হল, সত্যের থেকে গুজব বেশি তাড়াতাড়ি ছড়ায়।”

[আরও পড়ুন: ভোটমুখী বিহারে শরিকি কোন্দলে নাজেহাল শাসক শিবির, প্রশ্নে নীতীশের ভবিষ্যৎ]

মজার কথা হল, কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ঠিক মাস পাঁচেক আগে টুইটারে নিজের বায়ো থেকে ‘কংগ্রেস’ শব্দটি উড়িয়ে দিয়েছিলেন সিন্ধিয়া। সেবারেও একইরকমভাবে ‘সাফাই’ দিয়েছিলেন। শেষমেশ দল ছেড়ে বিজেপিতেই ভিড়ে যান তিনি। সিন্ধিয়া ঘনিষ্ঠদের দাবি, মহারাজ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর কখনও টুইটারের ‘বায়ো’তে বিজেপি শব্দটি যোগই করেননি। তাই সরিয়ে ফেলার প্রশ্নই আসে না। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement