BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ট্রেনেই দায়ের হবে চুরি-ছিনতাই-শ্লীলতাহানির অভিযোগ, টিটিইদের কাছে মিলবে FIR ফর্ম

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 26, 2020 6:31 pm|    Updated: October 1, 2020 3:51 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: ট্রেনে চুরি, ছিনতাই, শ্লীলতাহানির মতো ঘটনার অভিযোগ জানাতে যাত্রীকে আর ট্রেন (Train) থেকে নামতে হবে না। এফআইআর (TTE) দায়ের করা যাবে ট্রেনের মধ্যেই। এজন্য ট্রেনের টিকিট পরীক্ষক, কন্ডাক্টর, এসকর্ট বাহিনী, গার্ডের কাছেই পাওয়া যাবে এফআইআর ফর্ম। হিন্দি ও ইংরেজি দু’টি ভাষাতে দায়ের করা যাবে অভিযোগ। সেই অভিযোগ জিআরপি থানাতে জমা দেবে রেলকর্মীরা। আগে পরবর্তী স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করতে যাত্রীকে নামতে হত স্টেশনে।

অভিযোগ দায়ের, যাত্রীদের রেল অবরোধ নানা ঝামেলার সম্মুখীন হতে হত। ঝামেলা এড়াতে অধিকাংশ সময় অভিযোগ দায়ের হয় না। ফলে অপরাধের কিনারা করা দূরে থাক, ঘটনাই অজানা থেকে যায়। সেই বিষয়টি এড়াতে এবার রেলের নতুন নির্দেশ কার্যকর হয়েছে। ট্রেনে কর্তব্যরত কর্মীদের কাছেই থাকবে এফআইআর ফর্ম। স্টেশন মাস্টারের কাছেও পাওয়া যাবে ফর্মটি। ট্রেনে এফআইআর ফর্ম ভরে রেলকর্মীদের কাছে দিলে তাঁরাই পরবর্তী স্টেশনে অন্য রেলকর্মীদের মাধ্যমে জিআরপি থানায় জমা দিয়ে অভিযোগ দায়ের করবেন। অভিযোগের ভিত্তিতে জিআরপি আধিকারিক প্রয়োজন হলে অভিযোগকারীর সঙ্গে ফোনে কথা বলবেন। এই নির্দেশ কার্যকর প্রসঙ্গে রেল জানিয়েছে, ট্রেন থেকে নেমে অভিযোগ দায়ের থেকে শুরু করে ট্রেন চলা থেকে শুরু করে যাত্রীর ভ্রমণে বিঘ্ন ঘটানো এড়াতেই এই নয়া নির্দেশ।

[আরও পড়ুন ; চিনা প্রভাব খর্ব করতে তৎপর নয়াদিল্লি, শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক মোদির]

বিভিন্ন রেলে এই আইন কার্যকর হলেও পশ্চিমবঙ্গের রেল পুলিশ এখনও এমন নির্দেশ হাতে পায়নি। রেল পুলিশের এক পদকর্তা জানিয়েছেন, শুনলেও এই নির্দেশ আমরা এখনও পায়নি। নির্দেশ পেলে তা খতিয়ে দেখার পর বিবেচনা করা হবে। উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেল এই নির্দেশ মেনে তাদের ট্রেনগুলিতে নির্দেশ কার্যকর করেছে। ওই রেলের সিপিআরও শুভানন চন্দা জানান, বেশ কয়েক মাস আগে সব রেলে এই নির্দেশ এসেছে। ল এন্ড অর্ডার রাজ্যের বিষয় হওয়ায় অভিযোগ জিআরপিতে জমা দিতে হবে। এসকর্ট আরপিএফ, টিটিই, অন্য কর্মী, গার্ড অভিযোগ নিয়ে নির্দিষ্ট জিআরপি থানায় তা পাঠিয়ে দেবে। এরপর তদন্ত করবে পুলিশ।

[আরও পড়ুন ; বিহার ভোটের দিন ঘোষণা হতেই নীতীশের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রাক্তন ডিজিপির, তুঙ্গে জল্পনা]

মাঝপথে চুরি, ছিনতাই সহ নানা অপরাধ হলে যাত্রীরা নির্ধারিত জিআরপি থানায় অভিযোগ জানাতে পারেন না। ট্রেনটি গন্তব্যে আসার পর সেই স্টেশনের জিআরপি থানায় অভিযোগ জানান। সংশ্লিষ্ট থানা ‘জিরো’ এফআইআর দায়ের করে ঘটনাস্থলের থানায় পাঠিয়ে দেয়। এক রাজ্যের অভিযোগ আর এক রাজ্যে হওয়ায় তা গুরুত্ব হারায় বেশির ভাগ ক্ষেত্রে। যাত্রীরা কোনও সুফল পান না। অন্তিম বড় স্টেশনগুলির থানায় এমন বহু অভিযোগ হওয়ায় তারাও বিপাকে পড়েন। এই নির্দেশ কার্যকর হওয়ায় খুশি যাত্রী থেকে রেল পুলিশ সবাই। তাঁরা মনে করেছেন, এই প্রক্রিয়ায় সুফল মিলবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement