১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভিক্ষুকদের জোর করে জেলে পুরছে পুলিশ! কিন্তু কেন?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 8, 2018 11:03 am|    Updated: January 8, 2018 11:03 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভক্ষক শীতের হাত থেকে বাঁচতে হরিদ্বারে পুলিশ এবার রক্ষকের ভূমিকায়। রাস্তায় ভিক্ষুক দেখলেই পুলিশ পাকড়াও করে তাকে জেলে পুরছে। না না আতঙ্কতি হবেন না। ঠান্ডায় বেঘোরে প্রাণটা যাতে না যায় সেজন্যই এই বন্দোবস্ত।প্রবল শৈত্য প্রবাহের কবলে দেশের গোটা উত্তরাঞ্চল।হাড় কাঁপানো শীত থেকে বাঁচতে খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরোতে নারাজ সাধারণ মানুষ।তবে ভিখারীদের প্রসঙ্গ আলাদা। তাদের মুখের খাবারই থাকে না সেখানে মাথার ছাদ।তাই  ভিক্ষুকদের বাঁচাতে পথে নেমেছে হরিদ্বার পুলিশ। তাদের ধরে জেলে ঢোকানো হচ্ছে। এতে মাথার ছাদ যেমন থাকবে।তেমনই খাবার, কম্বলটাও জুটে যাবে সময়মতো।

[বিহার থেকে উদ্ধার কলকাতার তিন নাবালিকা, নারী পাচারচক্রের পর্দাফাঁস]

তবে পুলিশকর্মীরা নিজে থেকেই  ভিক্ষুক ধরার উদ্যোগ নেয়নি।টানা শৈত্যপ্রবাহের কারণে হরিদ্বারে কয়েকদিন আগেই তিনজন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। প্রশাসনিক দপ্তরে এই খবর পৌঁছতেই নড়েচড়ে বসেন কর্তাব্যক্তিরা। শীতের দাপট থেকে ভিখারীদের বাঁচাতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।তারপরেই ভিখারী ধরে জেলে ঢোকানোর নির্দেশিকা দেন জেলাশাসক।তাঁর নির্দেশিকা প্রথমে পৌঁছয় সিনিয়র পুলিশ সুপারের কাছে।এরপর হরিদ্বারের আওতাভুক্ত প্রত্যেকটি থানায় নির্দেশিকার প্রতিলিপি যায়।প্রতিলিপি পাওয়া মাত্র ভিখারী ধরার অভিযানে নামা হয়। নির্দেশিকা মেনে এই প্রথম মহিলা ভিখারীকেও গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দপ্তরের খবর অনুযায়ী দেশের বেশ কয়েকটি জায়গায় শৈত্যপ্রবাহ এখন অব্যাহত থাকছে। আগামী কয়েকটি দিনে আরও নামবে উত্তরভারতের তাপমাত্রার পারদ। অতএব পৌষেই শেষ পৌষমাস হল  ভিক্ষুকদের।

[ফের বিড়ম্বনায় বিজেপি, প্রেমিকার অভিযোগে গ্রেপ্তার আনিসুর রহমান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement