৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নৃশংস! ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ করে গোপনাঙ্গে লাঠি ঢুকিয়ে খুন হিসারে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 10, 2017 7:09 am|    Updated: September 20, 2019 2:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মানুষী চিল্লার, গীতা ফোগাটদের রাজ্যেই এবার বিকৃত যৌন লালসার শিকার ৫ বছরের এক শিশুকন্যা। ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’-এর স্লোগান তোলা রাজ্যেই ওই শিশুকন্যাকে ধর্ষণ করে গোপনাঙ্গে লাঠি ঢুকিয়ে নৃশংসভাবে খুন করার অভিযোগ উঠল। হরিয়ানার হিসারের এই ঘটনার ভয়াবহতায় শিউড়ে উঠেছে গোটা দেশ। রবিবার সকালে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই শিশুর দেহ উদ্ধার করা হয়। কিছুদিন আগেই যোগীর রাজ্য উত্তরপ্রদেশের সাহিবাবাদে এক দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে। শিশুটির গোপনাঙ্গে একইভাবে কাঠের টুকরো পর্যন্ত ঢুকিয়ে দেয় অভিযুক্ত পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। ভয়াবহতায় হিসারের ঘটনা তাকেও ছাপিয়ে গিয়েছে।

[‘পাশে আছি জায়রা’, অভিনেত্রীকে কাঁদতে দেখে সমব্যথী দেশবাসী]

মৃত শিশুর মা জানিয়েছেন, শনিবার রাতে ৯টা নাগাদ মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন তিনি। রবিবার সকালে উঠে তিনি মেয়েকে পাশে দেখতে না পেয়ে ঘাবড়ে যান। প্রতিবেশীদের মেয়ের বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তাঁরা কোনও আলোকপাত করতে পারেননি। তারপর গ্রামের একটা নির্জন জায়গায় মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। শিশুটির পরিবার জানিয়েছে, গোপনাঙ্গ-সহ একাধিক জায়গা দিয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। কাঠের লাঠি দিয়ে শরীর ক্ষত-বিক্ষত করা হয়েছে। দেহের চারপাশে প্রচুর রক্ত পড়েছিল। নির্যাতিতা শিশুর মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল।

[মোদি কিচ্ছু করতে পারবেন না, হুমকি দিয়ে স্ত্রীকে তিন তালাক]

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। ধর্ষণের বিষয়ে ময়নাতদন্তের পরই সহমত হওয়া যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে হিসারের ডিএসপি জিতেন্দর কুমার জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে এটি ধর্ষণের ঘটনা বলেই অনুমান। অভিযুক্তর খোঁজে বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু অভিযুক্ত এখনও ধরা পড়েনি।

[বিমানে ‘শ্লীলতাহানি’র শিকার, চোখে জল অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিমের]

আর সপ্তাহ খানেক বাদেই নির্ভয়া কাণ্ডের পাঁচ বছর পূর্তি। গত পাঁচ বছরে পথে-ঘাটে মহিলাদের সুরক্ষায় প্রচুর বন্দোবস্ত হয়েছে। নির্ভয়া ফান্ড তৈরি হয়েছে। কিন্তু দেশ আছে সেই তিমিরেই। বরং মহিলাদের বিপদ আরও বেড়েছে। দুধের শিশুও বিকৃত যৌন লালসার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না। সভ্য সমাজের ভিতরে লুকিয়ে থাকা অসভ্য-বর্বর মনষ্কতাকে যেন এই ঘটনা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement