৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাড়ির অমতে প্রেমের মাশুল দিতে হল ১৬ বছরের এক কিশোরীকে। পরিবারের সম্মানরক্ষায় বাবার নির্দেশে তাকে মুণ্ডচ্ছেদ করে হত্যা করল স্থানীয় এক কসাই। ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের গয়া জেলায়।

[‘আইনসিদ্ধ হলেও বাহিনীতে সমকামিতা বরদাস্ত নয়’, হুঁশিয়ারি সেনাপ্রধানের]

বৃহস্পতিবার পুলিশ জানিয়েছে, পাটওয়া গ্রামে বাবা-মা’র সঙ্গে বসবাস করত ওই কিশোরী। কয়েকদিন আগে স্থানীয় এক যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যায় সে। এর তিনদিন পর বাড়ি ফিরে এলে বাবা-মা’র রাগ গিয়ে পড়ে তার উপর। ঠান্ডা মাথায় মেয়েকে খুনের পরিকল্পনা করে তার বাবা। স্থানীয় এক কসাইকে দেওয়া হয় খুনের দায়িত্ব। শুধু মুণ্ডচ্ছেদ করেই মেটেনি প্রতিশোধ স্পৃহা। তারপর চলে মৃতদেহের উপর নৃশংস আঘাত। দেহ টুকরো টুকরো করে কেটে মুখ পুড়িয়ে দেওয়া হয়। এমনকী স্তন দু’টিও কোপানো হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। বিকৃত ও ছিন্নবিচ্ছিন্ন দেহ উদ্ধারের পর প্রাথমিকভাবে পুলিশের মনে হয়, ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে ওই কিশোরীকে। কিন্তু ময়নাতদন্তে তেমন কোনও প্রমাণ মেলেনি।

গয়ার এসএসপি রাজীব মিশ্র জানিয়েছেন, কয়েকদিন আগেই গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধার হয় ওই কিশোরীর দেহ। প্রথম দিকে মনে করা হয়েছিল ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে ওই কিশোরীকে। তবে ময়নাতদন্তে সেরকম কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তদন্তে ওই কিশোরীর পলিয়ে যাওয়ার কথাও জানতে পারে পুলিশ। তারপরই তার বাবাকে জেরা করতে বেরিয়ে পড়ে আসল কথা। পুলিশের দাবি, অপরাধের কথা স্বীকার করেছে অভিযুক্ত।

[লোকালয়ে চলে আসার ‘অপরাধ’, লেজ ধরে গোটা গ্রাম ঘোরানো হল চিতাবাঘকে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং