২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মহারাষ্ট্রে কৃষকদের মহামিছিলে সিঁদুরে মেঘ দেখছে ফড়ণবিস সরকার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 11, 2018 3:20 pm|    Updated: September 12, 2019 4:05 pm

Maharashtra farmers' rally about to reach Mumbai, Fadnavis govt. tightens up security

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যেন জনস্রোত। হাজার হাজার মানুষের মাথা এগিয়ে আসছে রাজপথে ধরে। মাথায় লাল টুপি, কাঁধে লাল ঝান্ডা, কাস্তে-হাতুড়ি নিশানের পতাকা নিয়ে এগিয়ে আসছে জনসমুদ্র। মহারাষ্ট্রে কৃষিঋণ মকুবের দাবিতে হাজার হাজার কৃষকদের মহামিছিল রবিবার এসে পৌঁছবে রাজধানী মুম্বইয়ের উপকন্ঠে। আর তাতেই সিঁদুরে মেঘ দেখছে ফড়ণবিসের সরকার। মঙ্গলবার নাসিক থেকে যাত্রা শুরু করেন কয়েক হাজার কৃষক। নেতৃত্ব দেন সর্বভারতীয় কৃষক সভার সভাপতি অশোক দাওয়ালে, সিপিএম বিধায়ক জেপি গাভিট, রাজ্য সভাপতি কিসান গুজর-সহ রাজ্যের শীর্ষ বাম নেতারা। ২০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয় এই মিছিল। যাত্রাপথেই এই মিছিল মহামিছিলের রূপ নেয়। মুম্বইয়ের কাছে থানে জেলায় যখন এসে পৌঁছয় মিছিলে তখন ৩৫ হাজার কৃষক। সারা দেশে এমন ঘটনা নজিরবিহীন। কৃষকদের প্রধান দাবি, কৃষিঋণ সম্পূর্ণ মকুব করতে হবে এবং স্বামীনাথন কমিশনের নির্দেশ পালন করতে হবে সরকারকে। ঋণ মকুব, ফসলের ন্যায্য দাম, লাঙল যার, জমি তার থেকে আদিবাসীদের অরণ্যের জমির উপরে অধিকারের মতো একগুচ্ছ দাবি নিয়ে সোমবার মহারাষ্ট্রের বিধানসভা ভবন ঘেরাও করবেন কৃষকরা। পশ্চিমবঙ্গ বা কেরল নয়। ত্রিপুরার দুর্গে ধস নামার পরে এ দেশে বামেরা কোণঠাসা। তখন বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্রেই সিপিএমের কৃষক সভা শোরগোল ফেলে দিয়েছে।

[গডসেকে ‘হিন্দুরত্ন জঙ্গি’ আখ্যা ওয়েইসির! বললেন, ‘আমিও মরতে ভয় পাই না’]

তবে পিছিয়ে নেই মহারাষ্ট্রের বিজেপি সরকারও। মুম্বই পুলিশ জোরদার নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করেছে। গোটা বাণিজ্যনগরী অচল করে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছেন কৃষকরা। তাই নিরাপত্তা ব্যবস্থা আঁটসাট করা হয়েছে। বিধান ভবন ঘেরাওয়ের আগে আজাদ ময়দানের কাছেই কৃষকদের পদযাত্রা আটকে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন। কিন্তু যে ভাবে চাষিরা কৃষক সভার ঝান্ডা হাতে রাস্তায় নেমেছেন, তাতে কপালে ভাঁজ বিজেপি নেতৃত্বর। বুলেট ট্রেন-সুপার হাইওয়ের মতো প্রকল্প করে বিজেপি সরকার চমক দিতে চাইছিল। সেই প্রকল্পের নামেই জমি অধিগ্রহণের বিরোধিতায় কৃষকরা পথে নেমেছেন। মহারাষ্ট্রে দেবেন্দ্র ফড়ণবিসের সরকার আগেই ৩৬ হাজার কোটি টাকার ঋণ মকুবের কথা ঘোষণা করে দিয়েছিল। কিন্তু তাতে চিড়ে ভিজবে না বলে জানিয়েছে কৃষক সভা। প্রধানমন্ত্রীর ফসল বিমা যোজনার ঘোষণাই সার। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগে ফসল নষ্ট হলেও ক্ষতিপূরণ মিলছে না। বুলেট ট্রেন, সুপার হাইওয়ের নামে আদিবাসীদের জমি কেড়ে নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ চাষিদের। বিজেপির উদ্বেগ আরও বাড়িয়েছে শিব সেনামহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা। শনিবারই দুই দল কৃষকদের মহামিছিলকে সমর্থন জানিয়েছে। যখন দেশ জুড়ে সাইনবোর্ডে পরিণত হচ্ছে বামপন্থী দলগুলি, সেখানে মহারাষ্ট্রের রাস্তায় পতপত করে ওড়া লাল নিশান নতুন করে আশার আলো দেখাচ্ছে বিজেপি বিরোধী রাজনীতিতে। কৃষক সভা জানিয়েছে, এই আন্দোলন থেকে বিজেপির হারের পথ মসৃণ করা যাবে বলে তারা নিশ্চিত।

[মূর্তি ভাঙার রাজনীতি অব্যাহত, এবার কণিষ্ক হলেন আম্বেদকর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে