BREAKING NEWS

৮ আষাঢ়  ১৪২৮  বুধবার ২৩ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কুৎসার জন্যই ভিত্তিহীন মন্তব্য, মোদির হাসপাতাল সফর বিতর্কে মুখ খুলল ভারতীয় সেনা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 4, 2020 9:34 pm|    Updated: July 4, 2020 9:54 pm

‘Malicious, unsubstantiated’: Army on reports of  Modi’s ‘fake hospital visit’

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুক্রবার লাদাখ সফরে গিয়ে লেহ-এর হাসপাতালে ভরতি থাকা জখম জওয়ানদের দেখতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। হাসপাতালের ওয়ার্ডের মধ্যে ঘুরে ঘুরে অনেক জওয়ানের সঙ্গে কথাও বলেন। পরে এই ভিডিও সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রকাশ পেতেই বিতর্ক তৈরি হয়। মোদির ফটোশুটের জন্য হাসপাতালটিকে সাজানো হয়েছিল বলে অভিযোগ জানাতে থাকে বিরোধীরা। শনিবার সেই বিতর্ককে ভিত্তিহীন বলে দাবি করল ভারতীয় সেনা। কুৎসা করার জন্যই এই ধরনের মন্তব্য করা হচ্ছে বলে সরাসরি অভিযোগ জানাল। একই কথা শোনানো হয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফেও।

এই বিষয়ে রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে তারা জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী ৩ জুলাই লেহ (Leh) -এর হাসপাতালে এসে জখম সেনা জওয়ানদের সঙ্গে দেখা করেছেন। তারপর থেকেই এই বিষয় নিয়ে ওনার নামে বিদ্বেষপূর্ণ ও ভিত্তিহীন মন্তব্য করা হচ্ছে। এটা খুবই দুঃখজনক একটি ঘটনা। এই ধরনের মন্তব্যের ফলে জখম জওয়ানরাও অপমানিত হচ্ছেন। ভারতীয় সেনা নিজেদের কর্মীদের সবথেকে ভাল পরিষেবা দিয়ে থাকে। কিন্তু, এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীকে বদনাম করার পাশাপাশি ভারতীয় সেনার পরিষেবাও নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক।

[আরও পড়ুন: বদ্ধ এসি কামরায় সংক্রমণের ভয়! এবার বিশেষ ব্যবস্থা রেলের]

হাসপাতালের ওই ওয়ার্ডের মধ্যে চিকিৎসার সরঞ্জাম সেভাবে দেখা না গেলেও প্রজেক্টর কেন রয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল। এর জবাব দিয়ে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ওই রুমটি আগে প্রশিক্ষণ ও কনফারেন্সের জন্য ব্যবহার করা হত। কিন্তু, কিছুদিন আগে হাসপাতালের বাকি ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্তদের ভরতি করার কারণে জখম জওয়ানদের ওখানে রাখা হয়েছিল। এর জন্য আলাদা করে ১০০টি নতুন বেডেরও ব্যবস্থা করা হয়।

[আরও পড়ুন: একেই বলে প্রভুভক্তি, মালকিনের মৃতদেহ দেখেই ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী পোষ্য]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement