০২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

স্বামীর ইচ্ছেয় সর্বদা যৌনতায় নাও রাজি হতে পারেন স্ত্রী, রায় আদালতের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 18, 2018 6:43 pm|    Updated: July 18, 2018 6:43 pm

Marriage doesn’t mean wife always ready for intercourse: Delhi HC

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ে মানে এই নয় যে সবসময় স্বামীর যৌন সংসর্গের ইচ্ছেকে মেনে নিতে হবে। স্বামীর সঙ্গে যৌন সংসর্গের প্রসঙ্গে না বলার অধিকার স্ত্রীর আছে। বুধবার এক শুনানির রায়ে একথাই জানাল দিল্লি হাই কোর্ট।

[‘হিন্দু পাকিস্তানের’ পর ‘হিন্দু তালিবান’, বিতর্ক উসকে ফের শিরোনামে শশী]

উল্লেখ্য, বৈবাহিক ধর্ষণ অপরাধ হিসেবে গণ্য হোক। এমনই দাবি নিয়ে বেশ কিছুদিন আগে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল এনজিও আরাইটি ফাউন্ডেশন। এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পালটা আবেদন করে পুরুষদের একটি সংগঠন। সেই মামলার শুনানি চলছে দিল্লি হাই কোর্টের বিচারপতি গীতা মিত্তল ও সি হরিশঙ্করের ডিভিশন বেঞ্চে। এদিন ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, স্বামীর যৌন সংসর্গের ইচ্ছেতে আদৌ স্ত্রী হ্যাঁ বলবেন কি না সেটা তাঁর ব্যাপার। এককথায় স্ত্রীরও না বলার অধিকার রয়েছে।

পুরুষদের নিরাপত্তায় কাজ করা এনজিওটির দাবি, ভয় দেখিয়ে বা মারধর করে যদি শারীরিক সম্পর্ক হয় তাহলে তাকে অপরাধ বলা যেতে পারে। এর উত্তরে এদিন আদালত জানায়, ধর্ষণের জন্য বলপ্রয়োগ করা জরুরি, এই ধারণা ভুল। একমাত্র আঘাতের চিহ্ন থাকলেই তা ধর্ষণজনিত অপরাধ হিসেবে মানা হবে, এমনটা নয়। বর্তমানে ধর্ষণের সংজ্ঞা আমূল বদলেছে। এদিন এনজিওর প্রতিনিধি অমিত লাখানি ও ঋত্বিক বিসারির দাবি, ডোমেস্টিক ভায়োলন্স অ্যাক্ট, বিবাহিত মহিলাদের উপরে হওয়া হেনস্তা, যেমন বনিবনা না হওয়ায় আলাদা থাকা মহিলাকে যদি স্বামী যৌনসংসর্গে বাধ্য করে তাহলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। সেইসব ক্ষেত্রে এই ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স অ্যাক্ট বিবাহিত মহিলাদের আইনি রক্ষাকবচের ভূমিকা নেয়।

[ফের ‘পকড়বা শাদি’! মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসানো হল ইঞ্জিনিয়ারকে ]   

এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে কোর্টের প্রশ্ন, যখন ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স অ্যাক্ট বিবাহিত মহিলাদের যৌনতা সংক্রান্ত নিরপত্তা দিয়েই দিচ্ছে তাহলে ভারতীয় দণ্ডিবিধির ৩৭৫ ধারা কেন ব্যতিক্রম হবে। যে ধারায় স্পষ্ট বলা আছে, স্ত্রীর সঙ্গে যৌন সংসর্গকে ধর্ষণ হিসেবে দেগে দেওয়া যাবে না। তাহলে কোনও স্বামী যদি সংসারের দায়ভার বহন করতে না চান বা ছেলেমেয়ের দেখাশোনা করতে রাজি না হন, এদিকে রীতিমতো ভয় দেখিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে যৌন সংসর্গ করেন। এরপর যদি সেই মহিলা স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন তাহলে কী হবে?

বলাবাহুল্য, স্বামীর সঙ্গে যৌন সংসর্গের ক্ষেত্রে বিবাহিত মহিলাদের না বলাকে গুরুত্ব দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে আগামী ৮ আগস্ট।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে