৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  |  পুজোর বাকি আর ২৪ দিন

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকারকে প্যাঁচে ফেলে লন্ডনে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন লিকার ব্যারন বিজয় মালিয়া৷ জানালেন, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে বৈঠক করেই দেশ ছেড়েছেন তিনি৷ তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ন’হাজার কোটি টাকার জালিয়াতি মামলা মিটমাটের জন্যই ওই বৈঠক বলেও জানান তিনি৷ মালিয়ার এই মন্তব্যের পরেই তুঙ্গে উঠেছে রাজনৈতিক তরজা৷ কেন্দ্রের প্রতি আক্রমণ শানিয়েছেন আপ নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল৷ যদিও লিকার ব্যারনের দাবি নস্যাৎ করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী৷ 

[রাফালে দিয়েই ঘায়েল করা হবে শত্রুদের: বায়ুসেনা প্রধান]

বুধবার, লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে শুনানিতে অংশ গ্রহণ করতে যান তিনি৷ সেখানেই সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে এই চাঞ্চল্যকর দাবি পেশ করেন ঋণখেলাপি মামলায় অভিযুক্ত এই ভারতীয় লিকার ব্যারন৷ যদিও মালিয়ার মিটমাটের দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ জানান, তাঁর অফিস বা বাড়িতে নয়, সংসদেই তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসনে মালিয়া৷ তবে তাঁর পেশ করা সমস্ত প্রস্তাবই খারিজ করে দেন৷ এই প্রথম নয় এর আগেও কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়েছেন বিজয় মালিয়া৷ রাজনীতির স্বার্থে ব্যবহার করা হচ্ছে তাঁকে৷ ভারতে ফিরিয়ে এনে তাঁকে রাজনীতির ঘুঁটি হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছে সরকার৷ দু’মাস আগে এমনই মন্তব্য করে বিজেপিকে বেকায়দায় ফেলেন তিনি৷ জানান, উনিশের লোকসভা ভোটের আগে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে এনে ভোট ব্যাংক মজবুত করতে চায় সরকার৷ দেশের মানুষের সামনে তাঁকে রাজনৈতিক উদ্দেশে ব্যবহার করাই কেন্দ্রের মতলব৷

এবার মালিয়া সরাসরি টেনে আনলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে৷ ইতিমধ্যে এই ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন আপ নেতা তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল৷ এই তথ্য কেন দেশবাসীর কাছ থেকে এতদিন গোপন করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী? প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও কি এই বৈঠকের বিষয়ে জানতেন না? সমালোচনার সুরে প্রশ্ন তুলেছেন আপ সুপ্রিমো৷

[কমিউনিস্ট চিনে আপত্তি নেই, সংঘের সভায় ব্রাত্য পাকিস্তান!]

উল্লেখ্য, ঋণখেলাপ করার অভিযোগে স্টেট ব্যাংক-সহ মোট ১৩টি ভারতীয় ব্যাংককে ২ লক্ষ পাউন্ড ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মালিয়াকে৷ নির্দেশ দিয়েছে ব্রিটেনের আদালত৷ ২০১৬-তে যখন ভারত থেকে ব্রিটেনে পালিয়ে যান বিজয় মালিয়া, তখনই তাঁর কাছ থেকে ভারতীয় ব্যাংকগুলির পাওনা ছিল ৯ হাজার কোটি টাকা। কেবল ক্ষতিপূরণই নয় পাশাপাশি, সমগ্র বিশ্বে মালিয়ার ছড়িয়ে থাকা সম্পত্তিও বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ বহাল রেখেছে আদালত৷ জানিয়েছে, মালিয়ার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পারবেন এনফোর্সমেন্ট অফিসাররা। প্রয়োজন পড়লে মালিয়ার মালিকানাধীন জায়গায় প্রবেশও করতে পারবেন তদন্তকারীরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং