BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জঙ্গিদের হাওয়ালা মারফত টাকা জোগাচ্ছে রোহিঙ্গারা, উদ্বিগ্ন কেন্দ্র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 18, 2017 7:39 am|    Updated: September 18, 2017 7:39 am

Rohingyas major threat to national security, Centre tells SC

সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা পেশ করে জানাল মোদি সরকার।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারতের অবস্থান স্পষ্ট করে সুপ্রিম কোর্টকে জানাল কেন্দ্র। এ ব্যাপারে আজই দেশের সর্বোচ্চ আদালতে হলফনামা পেশ করা হয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৪০,০০০ রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ ঘটেছে ভারতে। যা নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন কেন্দ্র।

জানেন, লালসা চরিতার্থ করতে কীভাবে মহিলাদের ফাঁদে ফেলত রাম রহিম? ]

রাখাইন প্রদেশ থেকে উৎখাত হয়ে গোটা বিশ্বেই ছড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গারা। বাংলাদেশ সবথেকে বেশি ভুক্তভোগী। ইতিমধ্যেই কয়েক লক্ষ উদ্বাস্তু ঠাঁই নিয়েছে সে দেশে। যার জেরে জোর প্রভাবিত হয়েছে সে দেশের অর্থনীতি। অতটা না হলেও একই সমস্যা ভারতেও। প্রতিদিনই মায়ানমার সীমান্তের ফাঁকফোকর গলে দেশে পা রাখছে রোহিঙ্গারা। মূলত উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতেই ঠাঁই তাদের। কিন্তু রোহিঙ্গাদের দেশে রাখতে নারাজ কেন্দ্র। কাশ্মীরে মাথা গোঁজা রোহিঙ্গারা কাতর আবেদন জানিয়েছে, তাদের যেন মায়ানমারে ফেরত পাঠানো না হয়। রাষ্ট্রসংঘও প্রত্যাশা করেছিল ভারত যেন রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়। কিন্তু পুরো ইস্যুতে দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার বিষয় জড়িয়ে থাকায় কোনও আপস করতে নারাজ কেন্দ্র। রাষ্ট্রসংঘকেও সে কথা জানানো হয়েছিল। নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে সুপ্রিম কোর্টকেও এ কথা জানিয়েছিল কেন্দ্র। রোহিঙ্গাদের একাংশের সঙ্গে জঙ্গি যোগ আছে বলেই রাখাইন প্রদেশ থেকে বিতাড়িত তারা। যার প্রভাব পড়ছে সাধারণ রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর। ভারত জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আইসিস জঙ্গিগোষ্ঠীর যোগ আছে বলেই জানা যাচ্ছে। প্রসঙ্গত, রোহিঙ্গা নির্যাতনের জন্য মায়ানমারকে কড়া মাশুল দিতে হবে বলে হুমকি দিয়েছিল আল কায়েদাও। আজ সর্বোচ্চ আদালতে হলফনামা জমা দিয়ে এ ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান আরও স্পষ্ট করল কেন্দ্র।

তথ্য দিয়ে জানানো হয়েছে সীমান্ত গলে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা এখনও পর্যন্ত দেশে পা রেখেছে। জঙ্গিযোগের কারণে যা দেশের পক্ষে বিপজ্জনক হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের বেশকিছু কাজে কেন্দ্র রীতিমতো উদ্বিগ্ন। বেশ কিছু রোহিঙ্গাদের সঙ্গে পাকিস্তানের জঙ্গিগোষ্ঠীর সরাসরি যোগ রয়েছে। জঙ্গিদের হাওয়ালা মারফত টাকাও পাঠাচ্ছে তারা। পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের জন্য দেশের পরিচয়পত্র জাল করার মতো অসামাজিক কাজও সমানে চালিয়ে যাচ্ছে তারা। ফলত রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো পুরোপুরি কেন্দ্রের নীতি। সেখানে সর্বোচ্চ আদালতের হস্তক্ষেপ বাঞ্চনীয় নয় বলেই জানিয়েছে মোদি সরকার।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে