১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বুধবার সুপ্রিম কোর্টে আধার মামলার চূড়ান্ত রায়দান

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: September 25, 2018 9:24 pm|    Updated: September 25, 2018 9:24 pm

SC to pronounce Adhar verdict wednesday

নন্দিতা রায়: অনেকে বলছেন এই সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্টেই নির্ধারিত হয়ে যাবে মোদি সরকারের ভাগ্য। কারণ এ সপ্তাহেই সুপ্রিম কোর্টে রয়েছে ৬ টি গুরুত্বপূর্ণ মামলা। যার প্রথমটি ছিল মঙ্গলবার। অভিযুক্ত নেতাদের নির্বাচনে লড়ার ছাড়পত্র দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। বুধবার এই সপ্তাহের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ মামলার চূড়ান্ত রায়দান। সমস্ত সরকারি প্রকল্প এবং দরকারি নথির সঙ্গে আধার নম্বরের সংযুক্তিকরণ বৈধ কিনা তা বুধবারই ঠিক হয়ে যাবে সর্বোচ্চ আদালতে। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ মামলার চূড়ান্ত রায় দেবেন বুধবার সকালে।

[রাফালে ইস্যুতে এবার রবার্ট বঢরার নাম জড়াল বিজেপি]

আধার মামলা সুপ্রিম কোর্টের ইতিহাসে দ্বিতীয় দীর্ঘতম মামলা। মোট ৩৮ দিন ধরে এই মামলায় সওয়াল-জবাব চলেছে সর্বোচ্চ আদালতে। গত জানুয়ারি থেকে টানা শুনানি চলছিল, অবশেষে বুধবার চূড়ান্ত শুনানি। কেন্দ্র ইতিমধ্যেই, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, প্যান কার্ড, মোবাইল সিম কার্ড, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স-সহ সমস্ত জনকল্যাণমূলক সরকারি প্রকল্পের সঙ্গে আধার লিংক করানোর নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা হয়। দাবি করা হয়, আধার কার্ড নিরাপদ নয়। আধারে সমস্ত ব্যক্তিগত তথ্য রয়েছে। তাই আধার নম্বরকে সমস্ত সরকারি প্রকল্পের সঙ্গে সংযুক্তিকরণ মানে ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকার লঙ্ঘন করা। মামলাকারীরা দাবি করেন, যে ভাবে অনলাইনে তথ্য যেভাবে ফাঁস হচ্ছে তাতে আধার পুরোপুরি ব্যান করে দেওয়া উচিত। সেই মামলা নিয়েই দীর্ঘদিন ধরে শুনানি চলছিল সর্বোচ্চ আদালতে। বুধবার তারই শুনানি।

[নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ‘মনোনীত’ হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি!]

আধার মামলার উপর রাজনৈতিক মহলও তাকিয়ে আছে অধীর আগ্রহে। কারণ, আধার নিয়ে সরকার-বিরোধী তরজাও বহু পুরনো। বিরোধীদের অভিযোগ আধার বাধ্যতামূলক করে কেন্দ্র ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকারে হস্তক্ষেপ করছে। তাছাড়া সুপ্রিম কোর্ট আগেই ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকারকে আইনসম্মত স্বীকৃতি দিয়েছে। বিচারপতিরা জানিয়েছেন, স্বাধীনতা ও মৌলিক অধিকার সংক্রান্ত সংবিধানের ২১ নম্বর ধারার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ গোপনীয়তার রক্ষার এই অধিকার। যে কোনও মূল্যেই এতে কোনও সীমারেখা টানা যায় না। এরপর থেকেই বিরোধীদের দাবি, গোপনীয়তার অধিকার যদি সাংবিধানিক হয়ে থাকে তাহলে আধার বৈধ হতে পারে না।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে