১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রামের পথেই আজ যাত্রা শুরু রামায়ণ এক্সপ্রেসের

Published by: Tanujit Das |    Posted: November 14, 2018 11:19 am|    Updated: November 14, 2018 11:19 am

Shri Ramayana Express to be flagged off today

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টে এখনও ঝুলে রয়েছে অযোধ্যা মামলা৷ আদৌ রাম মন্দিরের স্বপ্নপূরণ হবে কিনা, সেই প্রশ্নের উত্তর অজানা৷ বিষয়টি নিয়ে এখনও ধন্দে রয়েছেন হিন্দুরা৷ এমত অবস্থায় দেশে ও বিদেশের ‘রামলীলা স্থল’গুলিকে একসূত্রে গাঁথতে তৎপর কেন্দ্র৷ বুধবার থেকে শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস নামের একটি নয়া ট্রেন পরিষেবা চালু করতে চলেছে ভারতীয় রেল৷ এদেশে শ্রীরামের জন্মভূমি থেকে শুরু করে বনবাস স্থল এবং লঙ্কায় রামচন্দ্রের স্মৃতিধন্য স্থানগুলিকে এক সুতোয় বাঁধবে এই ট্রেন৷ দিল্লি থেকে প্রথম ধাপের যে যাত্রা শুরু হবে, তা শেষ হবে দক্ষিণ ভারতের রামেশ্বরে৷ দ্বিতীয় ধাপের যাত্রা হবে শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে৷

[নেহেরুর জন্যই চা-ওয়ালা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন, মোদিকে কটাক্ষ থারুরের]

কলোম্বর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এই নয়া পরিষেবা শুরু করতে চলেছে নয়াদিল্লি৷ জানা গিয়েছে, বুধবার অর্থাৎ ১৪ নভেম্বর দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করবে শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস। ৮০০ আসন বিশিষ্ট ট্রেনটি প্রভু রামে স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলিকে ছুঁয়ে প্রায় ১৬ দিন পর পৌঁছাবে রামেশ্বর। যাত্রা পথে এটি অতিক্রম করবে অযোধ্যা, হনুমানগড়ি, রামকোট, কনক ভবন মন্দির, নন্দীগ্রাম, সীতামারি, জনকপুর, বারাণসী, প্রয়াগ, নাসিক, হাম্পি এবং শেষে গিয়ে থামবে রামেশ্বরে। পুরাণ মতে, এই স্থান থেকেই লঙ্কার উদ্দেশ্যে সেতু বন্ধনের কাজ শুরু করেছিল রামচন্দ্রের বানর সেনা৷ যেহেতু এখান থেকে ট্রেন পথে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া সম্ভবপর নয়, তাই রয়েছে বিমানের মাধ্যমে পরিভ্রমণের ব্যবস্থা৷

[মুম্বইয়ের আন্ধেরিতে বহুতলে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, মৃত শিশু-সহ ২]

আইআরসিটিসি সূত্রে খবর, দু’ধাপের ভ্রমণে খাওয়া-দাওয়া, থাকা ও ভ্রমণ মিলিয়ে একজন ব্যক্তির জন্য খরচ পড়বে কমবেশি ৩৬,৯৭০ টাকা৷ ট্রেনযাত্রা ও বিমান যাত্রার সম্পূর্ণ ব্যবস্থা করবে আইআরসিটিসি। সমগ্র ভ্রমণে সময় লাগবে পাঁচ রাত-ছ’দিন৷ শ্রীলঙ্কায় রামের সঙ্গে জড়িত ক্যান্ডি, নুয়ারা, এলিয়া, কলম্বো ও নেগোম্বো ভ্রমণ করানো হবে পর্যটকদের৷ ট্রেনের দেওয়ালে থাকছে রামায়ণের কাহিনীর সচিত্র বিবরণ৷ তীর্থযাত্রীদের সাহায্যার্থে ট্রেনের দায়িত্বে থাকবেন আইআরসিটিসির আধিকারিকরা। তীর্থক্ষেত্রের গল্প শোনানোর জন্য থাকবেন অভিজ্ঞ গাইড। উনিশের লোকসভা নির্বাচনের আগে এই ট্রেন পরিষেবা চালু করার পিছনে কেন্দ্রের বিজেপি শাসিত সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে রয়েছে বলেও মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ তাঁদের মতে, যেহেতু এখন সুপ্রিম কোর্টে ঝুলে রয়েছে অযোধ্যা মামলা, তাই হিন্দুদের ‘রাম আবেগ’কে প্রশমিত করতে এই ট্রেন পরিষেবাকে কাজে লাগাতে চাইছে কেন্দ্র৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে