BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘মাস্ক না পরলেই নগদ ৫ হাজার টাকা জরিমানা’, সংক্রমণ রুখতে নয়া নিদান

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 12, 2020 4:57 pm|    Updated: April 12, 2020 4:57 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাস্কে নাক-মুখ ঢাকার পরামর্শ আগেই দিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। করোনার সংক্রমণ বাড়লেও সেই পরামর্শকে পাত্তা দিতে চাইছিলেন না অনেকেই। এবার তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে রাজ্য সরকারগুলি। মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হলেই পাঁচ হাজার টাকা জরিমানার নিদান দিয়েছে আহমেদাবাদ পুরসভা। এমনকী তিন বছরের জেলও হতে পারে। সংক্রমণ রুখতে মহামারি আইনের অধীনে এই নিদান দেওয়া হয়েছে বলে খবর।

রবিবার আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কমিশনার বিজয় নেহরা জানান, আহমেদাবাদ পুরসভা অঞ্চলে সোমবার সকাল ছ’টার পর থেকে রাস্তায় বের হলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। অন্যথায় মোটা টাকা জরিমানা দিতে হবে অথবা হাজতবাস করতে হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, বাজার থেকে কেনা মাস্ক না পরলেও চলবে। বদলে বাড়িতে তৈরি করা মাস্ক, নিদেনপক্ষে রুমাল দিয়ে মুখ ঢাকলেও চলবে। আমজনতার পাশাপাশি দোকানদার, সবজি বিক্রেতা সকলকেই এই নিয়ম মানতে হবে।

[আরও পড়ুন : করোনা মোকাবিলায় আপস নয়, ২২ দিনের সন্তান কোলে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন আধিকারিক]

সরকারি পরিসংখ্যান বলেছে, রবিবার পর্যন্ত আহমেদাবাদে ২৬৬ কোভিড-১৯ (COVID-19) পজিটিভের হদিশ পাওয়া গিয়েছে। যা গুজরাটের মধ্যে সর্বোচ্চ। মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। তাই এবার সংক্রমণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ করল আহমেদাবাদ প্রশাসন। ইতিপূর্বে, মহারাষ্ট্র, পাঞ্জাব, দিল্লিতেও একই ধরণের নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল। 

কিছুদিন আগে মাস্ক ব্যবহারের নির্দেশিকায় বদল করে কেন্দ্র। শুধুমাত্র করোনা আক্রান্ত, স্বাস্থ্যকর্মীরা নন, বাইরে বের হলে সকলকেই মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেয় কেন্দ্র সরকার। অভিযোগ উঠছে, বাজারে ক্লিনিকাল মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাড়িতে তৈরি পুনর্ব্যবহারযোগ্য মাস্ক ব্যবহারের উপর জোর দেয় কেন্দ্র সরকার। অ্যাডভাইজরিতে বলা হয়েছিল. যারা শারীরিকভাবে সুস্থ কিন্তু শ্বাসকষ্টের ধাত রয়েছে, তাঁরা মুখ ঢেকে ঢেকে রাখুন। বিশেষত বাড়ির বাইরে বের হলে মুখ ঢাকার ব্যবস্থা করুন। সকলকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে এই পদক্ষেপ। তবে মাস্ক অনেক সময় পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠছে। সেক্ষেত্রে বাড়িতে তৈরি মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র।

[আরও পড়ুন : দুঃসময়ের ‘বন্ধু’ রেল, লক্ষাধিক মানুষকে খাবার বিলি IRCTC-র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement