১ শ্রাবণ  ১৪২৬  বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অবশেষে সোমবার অর্থাৎ ১৭ জুন, ৭ দিন পর রাজ্যজুড়ে চিকিৎসাক্ষেত্রের অচলাবস্থা কাটল। এদিন দীর্ঘ বৈঠক হয় নবান্নে। আর তাতেই রাজ্যের আন্দোলনরত চিকিৎসকদের ফের কাজে ফেরাতে সক্ষম হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একপ্রকার বলা যায় যে, এত কাণ্ডের পর অবশেষে দুয়ার খুলেছে রাজ্যের বন্ধ থাকা স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রগুলির। আর যেভাবে এই পুরো ঘটনাটা সামলেছেন মুখ্যমন্ত্রী, সেই ‘ম্যাজিকে’ মন্ত্রমুগ্ধ তৃণমূলের তারকা সাংসদ দীপক অধিকারী তথা দেব। বৈঠক শেষে সুখবর প্রকাশ্যে আসতেই তৃণমূল সুপ্রিমোর প্রশংসায় রীতিমতো পঞ্চমুখ হয়েছেন অভিনেতা। টুইট করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁর প্রিয় ‘দিদি’-কে।

[আরও পড়ুন:  মানসিক চাপ কমাতে কেবল লাইনের কানেকশন কেটেছিল পরিবহ’র পরিবার!]

সোমবার নবান্ন থেকে জুনিয়র ডাক্তাররা একপ্রকার প্রায় জয়ের ডঙ্কা বাজিয়েই বেরিয়েছেন। চিকিৎসকদের দাবি মেনে নেওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ইতিবাচক বৈঠকের ফলশ্রুতি হিসেবে মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে কর্মবিরতি প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করছেন তাঁরা। সোমবার এই জটিল পরিস্থিতির জট কাটতেই দেব সোশ্যাল সাইটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি পোস্ট করেছেন। “এটাই মমতা ম্যাজিক। কাছে বসলেন, কথা শুনলেন, সমস্যার সমাধান হল। এসমা জারি হয়নি, পুলিশ পাঠাতে হয়নি। কথা বলে সমস্যার সমাধান। থ্যাঙ্ক ইউ দিদি”, এমনটাই লিখেছেন ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ দেব। প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন সেই রাজ্যের আন্দোলনরত চিকিৎসকদের উপর এসমা জারি করেছিলেন নরেন্দ্র মোদি। তবে, বিগত ৭ দিনে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা অচল হয়ে পড়ায় এখানেও এসমা জারির দাবি তুলেছিলেন অনেকেই। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী প্রথম থেকেই নারাজ ছিলেন ডাক্তারদের উপর এসমা জারি করে কোনওরকম আঘাত হানতে।

[আরও পড়ুন:  কর্মবিরতি উঠল, সাংবাদিক নিগ্রহের প্রসঙ্গ এড়িয়েই ঘোষণা জুনিয়র ডাক্তারদের]

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে কর্মবিরতি প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করছিলেন চিকিৎসকরা। একদিকে যখন ডাক্তারদের আন্দোলন চলছিল, অন্যদিকে চিকিৎসা না পেয়ে রোগীর পরিবার-পরিজনদের হাহাকার, হাসপাতালের বাইরে উৎকণ্ঠা নিয়ে ঠায় বসে থাকা মানুষগুলির ভিড়। একপ্রকার অচলাবস্থা কাটিয়ে সোমবার গা ঝাড়া দিয়ে উঠল রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা। আক্রান্ত চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে সোমবার দেখাও করে এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই পুরো ঘটনাটা যেভাবে মুখ্যমন্ত্রী সামলেছেন, তাতে কিন্তু ধন্য ধন্য করেছেন গোটা রাজ্যবাসী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীও।

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং